অস্ট্রেলিয়া

‘২৪ ঘণ্টার মধ্যে ইউক্রেনে হামলার শঙ্কা’

ক্য়ানবেরা, ২৩ ফেব্রুয়ারি – পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে রাশিয়া ইউক্রেনে পূর্ণ আগ্রাসন শুরু করতে পারে বলে সতর্ক করেছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন। তিনি জানান, ইউক্রেনে পূর্ণ আগ্রাসন চালানো সম্পন্ন করতে রাশিয়া তাদের প্রস্তুতির চূড়ায় পৌঁছেছে। ইউক্রেনের বিচ্ছিন্নতাবাদী দুইটি অঞ্চল এবং রুশ নাগরিকদের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দেন তিনি। একই সঙ্গে ইউক্রেন ছাড়তে চাওয়া মানুষের ভিসা আবেদন বিবেচনা দ্রুত সম্পন্ন করার নির্দেশও দেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী।

‘ইউক্রেনে আগ্রাসন ইতোমধ্যে কার্যকরভাবে শুরু হয়ে গেছে’ বলে মার্কিন বিবৃতির প্রতিধ্বনি করে বক্তব্য শুরু করেন স্কট মরিসন। তিনি রাশিয়ার ‘উসকানিহীন’ এবং ‘অগ্রহণযোগ্য’ পদক্ষেপের কঠোর নিন্দা করেন।

রাশিয়া ইউক্রেনে আগ্রাসন চালানোর প্রস্তুতি চূড়ান্ত করে ফেলেছে দাবি করে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী বলেন, সম্ভবত পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তা শুরু হতে যাচ্ছে। তিনি বলেন, ‘ইতোমধ্যেই বোমাবর্ষণের মতো খবর পাওয়া যাচ্ছে আর এই ধরনের বিষয়গুলো থেকে ইঙ্গিত পাওয়া যায় যে, এটা ইতোমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে।’

রাশিয়ার প্রতি ইঙ্গিত করে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী উদার গণতন্তের দেশগুলোকে একসঙ্গে দাঁড়িয়ে কর্তৃত্ববাদী রাষ্ট্রের বিরোধিতা করার আহ্বান জানান।

স্কট মরিসন জানান, অস্ট্রেলিয়ার অভিবাসন বিভাগকে ইতোমধ্যেই ইউক্রেন ছাড়তে চাওয়া মানুষদের ভিসা আবেদনকে অগ্রাধিকার দেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তিনি জানান, ইতোমধ্যেই এধরনের ৪৩০টি আবেদন পাওয়া গেছে।

বর্তমানে ইউক্রেনের প্রায় ৩৮ হাজার ভিন্ন মতাবলম্বী অস্ট্রেলিয়ায় বাস করছেন। স্কট মরিসন জানান এই মুহূর্তে অস্ট্রেলিয়ার প্রায় ১ হাজার চারশ’ নাগরিক ইউক্রেনে বসবাস করছে।

অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী জানান তার দেশ ইউক্রেনের দুই ‘বিচ্ছিন্নতাবাদী’ অঞ্চলের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবে। ব্যাংক, পরিবহন, জ্বালানি, বিদ্যুৎ, গ্যাস এবং টেলিযোগাযোগ টার্গেট করে এসব নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে। এছাড়া তিনি জানান, রাশিয়ার আট ব্যক্তি অস্ট্রেলিয়ার নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়বে।

সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন
এম ইউ/২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২২

Back to top button