রাজশাহী

আগামী নির্বাচনে জনগণ অবশ্যই নৌকার পক্ষে রায় দেবে: মেয়র লিটন

রাজশাহী, ১৯ ফেব্রুয়ারি – আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন বলেছেন, জনগণ আওয়ামী লীগের সঙ্গে আছেন। বিএনপি যদি নির্বাচনে আসে ভালো, না আসলেও কিছু যায় আসে না। নির্বাচন হবেই। আগামী নির্বাচনে জনগণ আবারও নৌকার পক্ষে রায় দেবে, আওয়ামী লীগকেই বিজয়ী করবে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের বিজয়ী হতেই হবে। উন্নয়নের ধারাবাহিকতা আমরা যদি ধরে রাখতে না পারি তাহলে আমাদের সর্বনাশ হয়ে যাবে। বিএনপি-জামায়াত সুযোগ পেলে আমাদের সকল অর্জন নষ্ট করে ফেলবে।

শুক্রবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টায় নওগাঁ জেলা স্কুল মাঠে নওগাঁ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যে সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন দেখেছিলেন, সেটি বাস্তবায়ন করছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গত ১০-১৫ বছরে বাংলাদেশের ব্যাপক পরিবর্তন হয়েছে। দেশে পদ্মা সেতু, মেট্রোরেল, যমুনা সেতুর রেল সংযোগ, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, মাতারবাড়ী কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র, এলএনজি টার্মিনাল নির্মাণ প্রকল্প, কয়লাভিত্তিক রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্র, পায়রা গভীর সমুদ্রবন্দর নির্মাণসহ ব্যাপক উন্নয়ন কাজ হচ্ছে। আজকে বিশ্ব আমাদের সমীহ করছে। শ্রীলঙ্কা আর্থিক দুরবস্থার মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০০ মিলিয়ন ডলার ঋণ দিয়েছেন। এই সক্ষমতা আমরা অর্জন করে ফেলেছি। আমাদের উন্নয়ন ও গৌরবের অর্জন মানুষের মাঝে প্রচার করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের জনপ্রিয়তা আরও বেড়েছে। লাখ লাখ তরুণ প্রজন্ম আজকে নৌকার পক্ষে, আওয়ামী লীগের পক্ষে। কারণ আওয়ামী লীগ সরকার তাদের পছন্দের নতুন বাংলাদেশ গড়ছে। বাংলাদেশর মানুষ জীবনে যা কল্পনা করেনি, সেটি আমরা দেখতে পাচ্ছি। আমাদের নিজস্ব বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট আকাশে ঘুরছে। দেশের মানুষের মাথা পিছু আয় বেড়েছে। বাংলাদেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে এসডিজির ১৭টি লক্ষ্য পূরণের পথে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ সত্যিকারের ডিজিটাল বাংলাদেশে পরিণত হয়েছে। ডিজিটাল বাংলাদেশের সকল সুযোগ সুবিধা পাচ্ছেন গ্রামের মানুষেরা।

আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ২০১৪ ও ২০১৫ সালে বিএনপি সারা দেশে আগুন সন্ত্রাস করেছে। নিরীহ মানুষকে পুড়িয়ে হত্যা করেছে। জনগণের জন্য রাজনীতি করলে তারা আগুন সন্ত্রাস করতে পারতো না। নির্বাচনকে সামনে রেখে ফের পাঁয়তারা করছে বিএনপি।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, খাদ্যমন্ত্রী ও নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাধন চন্দ্র মজুমদার।

নওগাঁ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহবুবুল হক কমলের সভাপতিত্বে সম্মেলনে উদ্বোধক ছিলেন নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল মালেক।

আরও বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শহিদুজ্জামান সরকার, মহাদেবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছলিম উদ্দিন তরফদার, রাণীনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন হেলাল প্রমুখ।

সম্মেলনের প্রথম অধিবেশনে নওগাঁ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটিকে বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়। এরপর নওগাঁ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে মাহবুবুল হক কমল ও সাধারণ সম্পাদক পদে রেজাউল করিমের নাম ঘোষণা করেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য খায়রুজ্জামান লিটন।

সূত্র : আরটিভি
এম এস, ১৯ ফেব্রুয়ারি

Back to top button