বলিউড

কোভিড পজিটিভ হয়ে হাসপাতালে ঐশ্বরিয়া

হায়দ্রাবাদ, ০৩ ফেব্রুয়ারি – তামিল সিনেমার কিংবদন্তি অভিনেতা রজনীকান্ত। করোনা আক্রান্ত হয়েছেন তার বড় মেয়ে ঐশ্বরিয়া।

মঙ্গলবার (১ ফেব্রুয়ারি) ফটো ও ভিডিও শেয়ারিং সাইট ইনস্টাগ্রামে কোভিড-১৯ পজিটিভ হওয়ার খবরটি জানিয়েছেন ঐশ্বরিয়া। তামিল ভাষার ‘থ্রি’ সিনেমাখ্যাত এই পরিচালক তার একটি ছবি পোস্ট করে লিখেছেন, ‘সকল সতর্কতা সত্ত্বেও কোভিড টেস্টে পজিটিভ হয়েছি। হাসপাতালে ভর্তি আছি। মাস্ক পরুন, টিকা নিন এবং নিরাপদ থাকুন। ২০২২, চ্যালেঞ্জের জন্য প্রস্তুত। আমার জন্য আর কী অপেক্ষা করছে তা দেখার অপেক্ষায় আছি।’

গত মাসে জনপ্রিয় অভিনেতা ধানুশের সঙ্গে দাম্পত্য জীবনের ইতি টেনেছেন ঐশ্বরিয়া। গত ১৭ জানুয়ারি মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারে এক বিবৃতিতে ধানুশ লেখেন, ‘১৮ বছর একসঙ্গে বন্ধু, দম্পতি, মা-বাবা ও শুভাকাঙ্ক্ষী হয়ে ছিলাম। উন্নতি, পরস্পরের প্রতি বোঝাপড়া, মানিয়ে নেওয়া, আয়ত্ত্ব করার একটা জার্নি ছিল। আজ এমন এক জায়গায় দাঁড়িয়ে যেখানে আমাদের পথ আলাদা হয়ে গেছে। ঐশ্বরিয়া ও আমি দাম্পত্য জীবনের ইতি টানার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। নিজেদেরকে আরো ভালোভাবে বোঝার জন্য সময় নিচ্ছি।’ পাশাপাশি তাদের এই সিদ্ধান্তটিকে সম্মান জানানোর জন্য সবাইকে অনুরোধ করেছেন ‘মারি’ সিনেমাখ্যাত এই অভিনেতা।

একই বিবৃতি পোস্ট করেন ঐশ্বরিয়া রজনীকান্ত। বিবৃতিতে তিনি নিজের নাম ঐশ্বরিয়া রজনীকান্ত লিখেছেন। ক্যাপশনে রজনীকান্ত কন্যা লিখেছেন, ‘কোনো ক্যাপশনের প্রয়োজন নেই। শুধু আপনারা বিষয়টি বোঝার চেষ্টা করবেন এবং আপনাদের ভালোবাসা প্রয়োজন।’

যদিও এই জুটির সংসার টেকাতে তাদের পরিবারের সদস্যরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে শোনা যাচ্ছে। ধানুশের বাবা চলচ্চিত্র নির্মাতা কাস্তুরি রাজা ভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমে জানান, ধানুশ ও ঐশ্বরিয়ার এই বিবাদের মূল কারণ তাদের মতবিরোধ। স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে এসব হয়েই থাকে। এটি প্রকৃতপক্ষে ডিভোর্স নয়। কাস্তুরি রাজা বলেন, ‘ধানুশ ও ঐশ্বরিয়া এখন চেন্নাইয়ে নেই। তারা দু’জনই এখন হায়দরাবাদে। তাদের সঙ্গে মুঠোফোনে কথা বলেছি এবং কিছু পরামর্শ দিয়েছি।’ পাশাপাশি রজনীকান্তও মেয়ের বিষয় নিয়ে পরিবারের অন্যদের সঙ্গে আলোচনা করছেন বলে জানা গেছে।

এন এইচ, ০৩ ফেব্রুয়ারি

Back to top button