উত্তর আমেরিকা

নিরাপত্তা পরিষদে মুখোমুখি যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া

ওয়াশিংটন, ০১ ফেব্রুয়ারি – ইউক্রেনের বিরুদ্ধে রাশিয়ার পদক্ষেপের বিষয়ে প্রথমবারের মতো বৈঠকে বসেছে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ। গতকাল সোমবার এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। মূলত যুক্তরাষ্ট্রের অনুরোধেই এর আয়োজন করা হয়েছে। ইউক্রেন সীমান্তে মস্কোর সেনাদের উপস্থিতি নিয়ে জাতিসংঘে মুখোমুখি হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া। এদিকে ক্রেমলিনের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কিত ব্যক্তি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের পরিকল্পনার নিন্দা জানিয়েছে ক্রেমলিন। অপরদিকে যুদ্ধের ডামাডোলে ধাক্কা খাচ্ছে রাশিয়ার অর্থনীতি। দরপতনের ঝুঁকিতে শেয়ারবাজার। দাম কমছে রুবলের। তবে এসব কিছুই রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভদ্মাদিমির পুতিনকে নিবৃত্ত করতে পারেনি। এমন পরিস্থিতিতে অর্থনীতিকে বাজি ধরেছেন তিনি। খবর এএফপি, বিবিসি ও এপির।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ইউক্রেন ও রাশিয়ার সাম্প্রতিক উত্তেজনার মধ্যেই এ আলোচনায় বসছে নিরাপত্তা পরিষদ। গুরুত্বপূর্ণ সবক’টি পক্ষই এতে অংশ নেবে। বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া এবং ইউরোপীয় সদস্য ফ্রান্স, আয়ারল্যান্ড, যুক্তরাজ্য, আলবেনিয়াসহ নিরাপত্তা পরিষদের ১৫টি সদস্য রাষ্ট্র তাদের অবস্থান জানাবে। নিয়ম অনুযায়ী, ইউক্রেনও তার বক্তব্য উপস্থাপন করবে। জাতিসংঘে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত লিন্ডা থমাস গ্রিনফিল্ড বলেছেন, রাশিয়ার পদক্ষেপ আন্তর্জাতিক শান্তি ও নিরাপত্তা এবং জাতিসংঘের সনদের জন্য একটি স্পষ্ট হুমকি। নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যদের অবশ্যই তথ্যগুলো পরীক্ষা করে দেখতে হবে। টুইটারে দেওয়া এক পোস্টে অবশ্য এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন জাতিসংঘে নিযুক্ত রাশিয়ার ডেপুটি অ্যাম্বাসাডর দিমিত্রি পলিয়ানস্কি।

সূত্র: সমকাল
এম ইউ/০১ ফেব্রুয়ারি ২০২২

Back to top button