জাতীয়

বিদেশে বিনিয়োগ করা অন্যায় কিছু না : অর্থমন্ত্রী

ঢাকা, ৩০ জানুয়ারি – আমাদের দেশের মানুষজন অনেক বেশি সৃজনশীল আইডিয়া নিয়ে আসছে এবং তারা বিদেশে বিনিয়োগ করার চেষ্টা করছে। বিদেশে ইনভেস্ট অন্যায় কিছু না। যদি অ্যালাউ না করেন তাহলে এ টাকা হুন্ডির মাধ্যমে বিভিন্ন জায়গায় চলে যাবে। তার চেয়ে যদি আমরা অফিসিয়ালি অ্যালাউ করি, সেখানে আমরা নিয়ম করে দিয়েছি সবাইকে অ্যালাউ করা হয়নি। অ্যালাউ করা হয়েছে যারা এক্সপোর্ট করে, নিজের অ্যাকাউন্টে এক্সপোর্টের বিপরীতে রিটেনশন মানি থাকে সেখান থেকে তাদের এক্সপোর্টের ২০ শতাংশ তারা বিদেশে বিনিয়োগ করতে পারবে। সেই ২০ শতাংশের ক্ষেত্রে শর্ত দেওয়া হয়েছে গ্রস এসেস থেকে লায়াবিলিটি বাদ দিলে যে নেট এসেস সেখান থেকে ২০ শতাংশ ২৫ শতাংশের মধ্যে যেটা কম সেই পরিমাণ টাকা তারা বিদেশে বিনিয়োগ করতে পারবে।’

রোববার (৩০ জানুয়ারি) বেলা সাড়ে ১২টায় অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামামের সভাপতিত্বে ভার্চুয়ালি অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত ও সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠক শেষে দুপুরে তিনি সাংবাদিকদের এসব কথা জানান।

চলতি বছর দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ ২৫ শতাংশ কমে গেছে। এ বিষয় জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ইনভেস্টমেন্ট অন্য জিনিস। বাংলাদেশ এখন উন্নয়নশীল দেশের কাতারে। উন্নয়নশীল দেশের কাতারে আমাদের অন্যান্যরাও আছে। প্রত্যেক দেশেই তাদের ফরেন এক্সচেঞ্জ রেটটা আস্তে আস্তে অ্যালাউ করে, জনগণের বিদেশি বিনিয়োগের জন্য, আমরাও সেই পথে যাচ্ছি। আমরা মনে করি আমাদের বিদেশি বিনিয়োগ হলে সেখান থেকে ইনকামও আসবে। আমাদের জনগণই সেখানে গিয়ে চাকরি করবে। আমাদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে। আমরা যদি বন্ধ করে রাখি, অন্যদের অ্যালাউ না করি তাহলে আমরা পিছিয়ে থাকব। আমি মনে করি এটা আমাদের ভালো উদ্যোগ। এটা নিয়ে আমরা অনেক কাজ করেছি।’

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এন এইচ, ৩০ জানুয়ারি

Back to top button