জাতীয়

ইসি আইন বিল সংসদে, বিরোধিতা বিএনপির

ঢাকা, ২৩ জানুয়ারি – বহুল আলোচিত নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠন সংক্রান্ত বিলটি সংসদে উত্থাপন করেছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে রোববার সংসদ অধিবেশন শুরু হলে বিলটি উত্থাপন করেন তিনি।

অধিকাংশ সদস্য বিল উত্থাপনের পক্ষে কণ্ঠভোট দিলে তাতে অনুমতি দেন স্পিকার। পরে আইন মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত স্থায়ী কমিটিতে বিলটিকে পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। সাত দিনের মধ্যে স্থায়ী কমিটি এ সংক্রান্ত রিপোর্ট দেবে।

তবে সংসদে উত্থাপনের পর বিলের বিরোধিতা করেন বিএনপির সংসদ সদস্যরা। বিএনপির সংসদ সদস্য হারুন উর রশিদ বলেন, জনগণের প্রত্যাশার সঙ্গে এই আইন সংগতিপূর্ণ নয়। যে বিলটি আনা হয়েছে…সার্চ কমিটির মাধ্যমে নির্বাচন কমিশন গঠন বিতর্কিত। দাবি ছিল যে বিতর্ক তৈরি হয়েছে, সেখান থেকে যেন আমরা বেরিয়ে আসতে পারি। এই আইনটি প্রত্যাহার করুন।

এসময় আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বিরোধিতার সমালোচনা করে বলেন, এক কোটি ৩০ লাখ ভুয়া ভোটার তৈরি করে। তাদের লোক যেন তত্ত্বাবধায়ক সরকারে থাকে, এ জন্য সুপ্রিম কোর্টের বিচারকের বয়স ৬৭ করে ফেলেন। কারও সঙ্গে আলোচনার তখন প্রয়োজন হয়নি। কারণ তারা নিরবচ্ছিন্ন নির্বাচন করতে চেয়েছিলেন। মানে কারচুপি করে ক্ষমতায় আসার জন্য।

আইনমন্ত্রী আরও বলেন, নির্বাচন উনারা করতে পারেননি। সংবিধানের ৫০ বছর হয়েছে। এখানে নির্বাচন কমিশনের আইনের কথা বলা হয়েছে। আমরা সেই আইন করেছি। উনারা বুঝে বলুক না বুঝে বলুক, বলছেন সার্চ কমিটির আইন, আজকে যেটা করা হয়েছে।

কে এম নূরুল হুদার নেতৃত্বাধীন বর্তমান নির্বাচন কমিশনের মেয়াদ শেষ হচ্ছে ফ্রেব্রুয়ারিতে। এমন বাস্তবতায় নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে সরগরম দেশের রাজনৈতিক অঙ্গন।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
এম ইউ/২৩ জানুয়ারি ২০২২

Back to top button