এশিয়া

সু চির আরও চার বছরের কারাদণ্ড

নেপিডো, ১০ জানুয়ারি – আরও তিন মামলায় মিয়ানমারের গণতন্ত্রপন্থী নেত্রী অং সান সু চির চার বছরের কারাদণ্ড হয়েছে। সোমবার সেনাশাসিত মিয়ানমার সরকারের একটি আদালত এ রায় ঘোষণা করে।

গত বছরের ১ ফেব্রুয়ারি অং সান সু চি সরকারকে হটিয়ে মিয়ানমারে ক্ষমতায় আসে দেশটির সামরিক বাহিনী। তখন তিনি ও তার সরকারের উর্ধ্বতন কয়েক কর্মকর্তাকে আটক করা হয়।

এর পর থেকেই সু চি ও তার সমর্থকরা আটক অবস্থায় রয়েছেন। সু চিকে মিয়ানমারের রাজধানী নেডিদোতে একটি বাড়িতে গৃহবন্দী করে রাখা হয়েছে। সেখানে রেখেই তার বিচার হচ্ছে।

সু চিকে গ্রেপ্তারের পর তার সমর্থকরা মিয়ানমারজুড়ে বিক্ষোভ দেখান। তখন তাদের ওপর দমনপীড়ন শুরু করে ক্ষমতাসীন সেনা সরকার। স্থানীয় পর্যবেক্ষকরা জানান, এ সময় গুলিতে এক হাজার ৪০০ বিক্ষোভকারী নিহত হন।

সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র বার্তাসংস্থা এএফপিকে জানায়, দুটি অভিযোগে সু চিকে কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। একটি হলো- তিনি অবৈধভাবে ওয়াকি-টকি আমদানি করে নিজের কাছে রেখেছিলেন।

অভ্যুত্থানের পর সু চিকে যখন আটক করা হয়, তখন তার কাছ থেকে এ ওয়াকি-টকি জব্দ করা হয়েছিল।

অপর অভিযোগটি করোনা ভাইরাসের নিয়ম লঙ্ঘন সম্পর্কীত। অভিযোগ রয়েছে, করোনা ঠেকাতে আরোপিত নিয়ম লঙ্ঘন করেছেন সু চি।

এর আগে ডিসেম্বরে দুটি মামলায় সু চির চার বছরের জেল হয়েছিল। পরে মিয়ানমারের সামরিক সরকারের প্রধান মিন অং হল্যাং তার দুই বছরের সাজা মওকুফ করেন এবং জানান যে, সু চি রাজধানী নেপিদোতে গৃহবন্দী অবস্থায় সাজা ভোগ করবেন।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এন এইচ, ১০ জানুয়ারি

Back to top button