উত্তর আমেরিকা

হত্যাযজ্ঞের জন্য ‘ট্রাম্পই দায়ী’

ওয়াশিংটন, ০৭ জানুয়ারি – যুক্তরাষ্ট্রে কংগ্রেস ভবন ক্যাপিটলে গত বছর ৬ জানুয়ারি নজিরবিহীন হামলায় নাশকতার জন্য তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পই দায়ী। ওই হামলার বছরপূর্তিতে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন তার ভাষণে পূর্বসূরি ট্রাম্পকে দায়ী করছেন বলে গতকালই বিবিসি জানিয়েছিল। রিপাবলিকান নেতার উসকানিতেই যে ওই হামলা হয়েছিল, হামলার দিনই এমন মন্তব্য করেছিলেন সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।

ওই দিন মার্কিন কংগ্রেসের যৌথ অধিবেশনে ৩ নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জো বাইডেনের জয়ের স্বীকৃতির প্রক্রিয়া চলছিল। ভোটের ফল পাল্টে দিতে কংগ্রেস সদস্যদের ওপর চাপ সৃষ্টি করতেই ট্রাম্প সমর্থকরা ক্যাপিটল ভবনে হামলা চালায় বলে মনে করা হয়। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে অন্তত পাঁচজনের মৃত্যু হয়।

২০০ বছরের বেশি সময়ের মধ্যে এটি যুক্তরাষ্ট্রের গণতন্ত্রের প্রতীকের ওপর চালানো সবচেয়ে মারাত্মক হামলা। ইউএস ক্যাপিটল হিস্টোরিক্যাল সোসাইটির তথ্যমতে, ১৮১৪ সালে ব্রিটিশ সেনাবাহিনী পুড়িয়ে দেওয়ার পর থেকে গণতন্ত্রের প্রতীকে পরিণত হওয়া এ ভবনটিতে এটিই ছিল সবচেয়ে ক্ষতিকারক হামলা।

হোয়াইট হাউসের গণমাধ্যম সচিব জেন সাকি বলেন, প্রেসিডেন্ট বাইডেন ওই হামলার জন্য ট্রাম্পকে দায়ী করেন। সাকির ভাষায়, ‘সাবেক প্রেসিডেন্ট আমাদের গণতন্ত্রের ওপর যে হুমকি সৃষ্টি করেছেন, সে বিষয়ে প্রেসিডেন্ট বাইডেনের সচেতন দৃষ্টি আছে।’

বিবিসি বলছে, হামলার সঙ্গে সরাসরি যুক্ত থাকার অভিযোগে এ পর্যন্ত ৭২৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ট্রাম্পকে অভিযুক্ত করার জন্য অ্যাটর্নি জেনারেল গারল্যান্ডের ওপর চাপ রয়েছে। ক্যাপিটলে হামলার ঘটনায় ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ফেডারেল আদালতে নতুন করে আরও দুটি মামলা হয়েছে। এসব মামলায় ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ক্যাপিটল ভবনে হামলার নির্দেশ, উৎসাহ প্রদান ও দাঙ্গা বাঁধিয়ে হতাহত করার অভিযোগ আনা হয়েছে।

এ হামলার ঘটনার পর এক বিবৃতিতে দেওয়া প্রতিক্রিয়ায় ওবামা বলেছিলেন, ‘ক্যাপিটলে সহিংসতার ঘটনা আমাদের জাতির জন্য বড় ধরনের অসম্মান ও লজ্জার মুহূর্ত হিসেবে ইতিহাস ঠিক মনে রাখবে, যা উসকে দিয়েছেন একজন ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্ট, যিনি একটি বৈধ নির্বাচনের ফল নিয়ে ভিত্তিহীনভাবে মিথ্যা বলে চলছেন।’

সূত্র : আমাদের সময়
এম এস, ০৭ জানুয়ারি

Back to top button