এশিয়া

আবারও কঠোর বিধিনিষেধ জারি করেছে হংকং

হংকং, ০৬ জানুয়ারি – করোনাভাইরাসের নতুন অতিসংক্রামক ধরন ওমিক্রন স্থানীয়ভাবে ছড়িয়ে পড়ার পর আবারও কঠোর বিধিনিষেধ জারি করেছে হংকং। এর মধ্যে রয়েছে আটটি দেশের সঙ্গে ফ্লাইট বাতিল, বার-জিম বন্ধ, রাতের বেলা রেস্টুরেন্টে খাওয়া-দাওয়া নিষিদ্ধের মতো একগুচ্ছ পদক্ষেপ। বিশ্বের অন্যতম ব্যবসায়িককেন্দ্রে নতুন করে বিধিনিষেধ জারি হওয়া বিশ্বঅর্থনীতিতে আরেকটি বড় আঘাত হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

মূল ভূখণ্ডের মতো চীনের বিশেষ প্রশাসনিক অঞ্চল হংকংও মহামারির শুরু থেকেই কঠোর করোনাবিধি মেনে চলেছে। কার্যত সীমান্ত বন্ধ, কয়েক সপ্তাহের কোয়ারেন্টাইন, এলাকাভিত্তিক লকডাউন, গণহারে করোনা পরীক্ষার মতো ব্যবস্থা নিতে দেখা গেছে তাদের।

গত মঙ্গলবার (৪ জানুয়ারি) পর্যন্ত শহরটিতে ১১৪ জনের শরীরে ওমিক্রন করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এদের বেশিরভাগই পাওয়া গেছে বিমানবন্দরে অথবা ২১ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকা অবস্থায়। কিন্তু সম্প্রতি ক্যাথে প্যাসিফিক এয়ারলাইনের এক কর্মীর সূত্র ধরে সেখানে ছোটখাটো গুচ্ছসংক্রমণ শনাক্তের পর কঠোর বিধিনিষেধ আরোপের দাবি ওঠে।

হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী ক্যারি ল্যাম বলেছেন, শহরটিতে এবার ওমিক্রনের সম্প্রদায়ভিত্তিক সংক্রমণ ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা।

এর জেরে স্থানীয় সময় আগামী শনিবার (৮ জানুয়ারি) মধ্যরাত থেকে ভারত, পাকিস্তান, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা, ফ্রান্স, ফিলিপাইন ও অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে দুই সপ্তাহের জন্য সব ধরনের ফ্লাইট বাতিল করেছে হংকং কর্তৃপক্ষ।

ব্যবসায়িক বিধিনিষেধ
ওমিক্রনের বিস্তার ঠেকাতে হংকংয়ে সব ধরনের বড় জনসমাগম নিষিদ্ধ করা হয়েছে। আগামী শুক্রবার (৭ জানুয়ারি) থেকে বন্ধ থাকবে বার, নাইটক্লাব, জিম, বিউটি পার্লারসহ আরও কিছু ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান। সন্ধ্যা ৬টার পর রেস্টুরেন্টে খাওয়া যাবে না।

বাতিল করা হয়েছে সব ক্রুজ ভ্রমণ। বুধবার ৩ হাজার ৭০০ আরোহী থাকা একটি জাহাজের নয়জন ওমিক্রন আক্রান্তদের সংস্পর্শে গিয়েছেন জানতে পারার পর সেটিকে বন্দরে ফিরিয়ে নেওয়া হয়েছে। জাহাজটির সব আরোহীর করোনা পরীক্ষা করা হচ্ছে।

সূত্র : জাগো নিউজ
এন এইচ, ০৬ জানুয়ারি

Back to top button