ফ্যাশন

গড়ন বুঝে কিনুন স্মার্ট টি-শার্ট

সিম্পল একটা টি-শার্ট আর জিনস- এই ক্যাজুয়াল লুকেই অনন্য দেখাবে যে কোন পুরুষ। আর এর সঙ্গে তো আছেই চলতি ট্রেন্ড অনুসারে ফ্যাশনের ভিন্নতা। তবে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ নিজের ইমেজের সঙ্গে মানানসই হওয়া। যেটা ভালো লাগল সেটাই কিনে ফেলবেন না। আপনার ফিগার অনুযায়ী টি-শার্ট বাছুন। এই ব্যাপারে জেনে নিন কিছু টিপস-

পারফেক্ট ফিট
ঢিলেঢালা টি-শার্টের থেকে ফিটিংস টি-শার্ট বাছুন। তবে ওই যে এক্ষেত্রেও গুরুত্বপূর্ণ আপনার ফিগার স্ট্রাকচার। আপনি যদি শুকনো গড়নের হন, তাহলে স্লিম ফিট টি-শার্ট পরবেন না। ফিগার ভালো হলে আদর্শ পারফেক্ট ফিট টি-শার্ট। কেনার আগে দেখে নিন টি-শার্টের হাত যেন ছোট হয়। তবে টি-শার্টের ঝুল যেন একদম ছোট না হয়। আবার একদম বড়ও যেন না হয়।

নেক-স্টাইল
টি-শার্টের জন্য V নেক উপযুক্ত। কারণ, এতে গলার অনেকাংশ দেখা যায়। ফলে আপনার হাইটও অনেকটা বেশি দেখাবে। যাদের শরীর অপেক্ষাকৃত চওড়া, তারা এই টি-শার্ট ট্রাই করুন। এতে আপনাকে বেশ ছিপছিপে দেখাবে। যাঁর কাঁধের দিক ঢালু, তাঁর জন্য আদর্শ ক্রিউ-নেক। এতে দেখতেও ভালো লাগে।

ফ্যাব্রিক চয়েস
যারা টি-শার্ট কিনে পরার থেকে বানিয়ে পড়তে বেশি পছন্দ করেন, তাদের জন্য বেস্ট পিমা বা ইজিপশিয়ান কটনের কাপড়। এই ধরনের কাপড় ভীষণ হালকা ও দীর্ঘস্থায়ী। তাছাড়া স্ট্রেচবল হওয়ার কারণে আপনি আদর্শ শেপ পাবেন।

টাইমলেস কালার
আপনার ওয়ারড্রোবে সাদা, ধূসর ও কালো রংয়ের টি শার্ট রাখতেই হবে। এই রংগুলো আপনি যে কোনও অনুষ্ঠানে পরতে পারেন। যে কোনও রঙের প্যান্টের সঙ্গে সাদা টি-শার্ট আদর্শ। তাছাড়া কে না জানে, ধূসরের একটা আলাদা আবেদন রয়েছে! আর কালো রং পছন্দ করেন না এমন পুরুষ বোধহয় নেই। ফ্যাশন সচেতন পুরুষদের মধ্যে খুব জনপ্রিয় এই রং। যে কোনও রঙের প্যান্টের সঙ্গে এই রং মানিয়ে যায়।

এম ইউ

Back to top button