ফ্যাশন

ক্রিস্টাল মেকআপে ঝলসে উঠুন! ঝলসে দিন ওঁদের চোখ

ভাবুন তো পার্টিতে গিয়েছেন, আর সকলের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু শুধুই আপনি। কারণ কখনও আপনার দুই ধনুক ভ্রূ-র পাশে, কখনও বা ছিপছিপে দুই ঠোঁটের ওপর ঢেউ খেলে যাচ্ছে চকচকে পাথর কুচি, কখনও বা শ্বেত শুভ্র মুক্তোদানা।

ফাউন্ডেশন, প্যান কেক, কনসিলর, লিপগ্লস, আইশ্যাডো তো অনেক হল। মান্ধাতার আমলের মেকআপ ছেড়ে এ বার একটু অন্য ভাবে ঝলসে উঠুন। ট্রাই করুন ক্রিস্টাল মেকআপ। আর ক্রিস্টালের দ্যুতিতে মোহময়ী হয়ে যান। তবে এই মেকআপ করার আগে দেখে নিন-

১) যেখানে ক্রিস্টাল লাগাতে চান মুখের সেই জায়গাটা কিন্তু হেয়ার-ফ্রি হতে হবে। না হলে ক্রিস্টাল ভাল করে বসবে না। তাই মেকআপের আগে থ্রেডিং কিন্তু মাস্ট।

২) মেকআপ করার আগে ভাল করে ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। তৈলাক্ত বা ময়লা স্কিনে ক্রিস্টাল লাগানো যাবে না।

৩) যে আঠাই ব্যবহার করুন না কেন তা যেন ভাল মানের হওয়া চাই। আইল্যাশ, টিপ বা ক্রিস্টাল লাগানোর আলাদা আঠা বাজারে পাওয়া যায়। চেষ্টা করুন নামী কোম্পানির আঠা ব্যবহার করতে।

৪) একটা সরু মুখের চিমটে ব্যবহার করুন। চিমটে দিয়ে ক্রিস্টালটি ধরে তার পিছন দিকে প্রথমে আঠা লাগান। তার পর মুখের পছন্দের জায়গায় বসিয়ে দিন। এর পর হালকা করে চাপ দিয়ে মুখের সঙ্গে আটকে দিন।

৫) ক্রিস্টালটি লাগানোর পর কিছুটা সময় দিন আঠা শুকোনোর। একটা ক্রিস্টাল শুকোনোর পরই পরেরটা লাগান।

৬) মনে রাখবেন, ক্রিস্টাল মেকআপ করার সময় মোটেই তাড়াহুড়ো করবেন না। একটার আঠা শুকানোর আগেই পাশেরটা আটকাতে গেলে আগেরটা পরে যেতে পারে। ভাল করে পাথরগুলো না বসলে, পরে পার্টিতে গিয়েও খসে যেতে পারে। এই ক্রিস্টালগুলো যথেষ্ট দামি। তাই তাড়াহুড়ো করতে গিয়ে এগুলো যেন হারিয়ে না যায়।

৭) ড্রেসের সঙ্গে মানানসই ক্রিস্টাল ব্যবহার করুন। ক্রিস্টালের রং, সংখ্যা, পজিশন সবই হওয়া উচিত আপনার ড্রেস আর পার্টির মুডের ওপর ভিত্তি করে।

৮) সবই তো হল। ক্রিস্টাল মেকআপ হল, পার্টি হল, কিন্তু বাড়ি ফিরে মেকআপ তুলতে ভুলবেন না যেন। চিমটে দিয়ে একটা একটা করে পাথর খুলে যত্ন করে রাখুন। তার পর ক্লেনজিং মিল্ক দিয়ে তুলে ফেলুন মুখের আঠার দাগ।

এম ইউ

Back to top button