জানা-অজানা

বিভিন্ন দেশের অদ্ভুত ও হাস্যকর ৯ টি আইন

কথায় বলে আইনের চোখে সবাই সমান যদিও এই কথাটি কতোটা কার্যকর তা আমরা কেউই জানি না। কিন্তু একেক দেশে যে একেক ধরনের আইন আছে তা আমরা সবাই বেশ ভালোভাবেই জানি। নিজের দেশের আইনগুলো বছরের পর বছর ধরে পালন করে আসছে বিভিন্ন দেশ। কিন্তু এতসব আইনের ভিড়ে বিভিন্ন দেশে রয়েছে অদ্ভুত এবং বেশ হাস্যকর কিছু আইন। বিশেষজ্ঞদের শনাক্তকৃত পৃথিবীর কিছু দেশের সব চাইতে অদ্ভুত এবং হাস্যকর আইন নিয়ে আজকে আমাদের ফিচার।

কলোরাডো- যুক্তিযুক্ত কোনো কারন না দেখিয়ে এই দেশে কেউ বৃষ্টির পানি সংগ্রহ করতে পারবে না, এটি আইনত অপরাধ। কি কারনে বৃষ্টির পানি সংগ্রহ করা হচ্ছে তার পেছনে যুক্তি না দেখিয়ে বৃষ্টির পানি ধরা একপ্রকার চুরির পর্যায়ে পরে এই দেশে।

হংকং- স্ত্রী পরকীয়া করলে স্বামী তাকে খুন করতে পারেন। তবে শর্ত হচ্ছে স্বামীকে তার স্ত্রীর খুন করতে হবে খালি হাতে।

অ্যারিজোনা- কেউ সাবান চুরি করে ধরা পরলে তাকে সেই সাবান দিয়ে গোসল করতে হয়। এবং যতক্ষণ পর্যন্ত সাবান শেষ না হচ্ছে ততোক্ষণ পর্যন্ত গোসল করেই যেতে হবে।

আরকানসাস- এই দেশে মাসে একবার বউ পেটানো যাবে। কিন্তু একই মাসে দুইবার বউ পেটালে তা হবে আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

গুয়াম (আমেরিকা)- গুয়ামে কোন কুমারী মেয়েকে বিয়ে করা দণ্ডনীয় অপরাধ। প্রথমে কুমারী মেয়েটির কুমারীত্বের অভিশাপ দূর করতে হবে পেশাদার পুরুষ দিয়ে। এরপর তাদের দেয়া সনদ দেখিয়ে বিয়ে করতে হবে। এই অঙ্গরাজ্যটিতে রয়েছে টাকার বিনিময়ে কুমারীত্বের অভিশাপ দূর করার জন্য কিছু পেশাদার পুরুষ।

ইলিনয়িস- শীতকালে কোন বাচ্চা জমে থাকা তুষার দিয়ে বল বানিয়ে গাছের দিকে ছুড়তে পারবে না। যদি ছোঁড়া হয় তবে বাচ্চার বাবা- মাকে গুনতে হবে জরিমানা।

নেভাডা- কোন স্বামী যদি তার স্ত্রীকে পেটান তবে আইন অনুসারে তাকে বেঁধে রাখা হবে ৮ ঘণ্টা। এবং বুকে সেঁটে দেয়া হবে একটি পোস্টার যাতে লেখা থাকবে ‘ওয়াইফ বিটার’ অর্থাৎ ‘বউ পেটানো বিশেষজ্ঞ’।

জাপান- কোন পুরুষ যদি কোন মেয়েকে প্রেমের প্রস্তাব দেন তবে আইন অনুসারে মেয়েটি না করতে পারবেন না যদি তার মত নাও থাকে।

থাইল্যান্ড- ত্রিশ বছরের বেশি অবিবাহিত মহিলারা আইনত দেশের সম্পত্তি হিসেবে গণ্য হবে।

Back to top button