ক্রিকেট

জয়ের অভিষেক হাফ-সেঞ্চুরি, বাড়ছে রান

ওয়েলিংটন, ০২ জানুয়ারি – পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পা রাখা মাহমুদুল হাসান জয়ের। অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়ী এই ব্যাটার বয়সভিত্তিক ক্রিকেটে নিজের সামর্থ্যের প্রমাণ রেখেছিলেন বেশ। জাতীয় দলে এসে শুরুটা ভালো না হলেও দ্বিতীয় টেস্টেই অর্ধশতকের দেখা পেলেন তিনি। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে অর্ধশতক গড়েন এই ওপেনার। তার অর্ধশতকের দিনে কিউইদের দারুণভাবে মোকাবিলা করে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

আজ রোববার স্বাগতিক নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচেই অর্ধশতকের দেথা পেয়েছেন তিনি। ১৬৫ বলে ৪টি বাউন্ডারির সাহায্যে ফিফটি পূর্ণ করেন এই ব্যাটার। তার অর্ধশতকে ভর করে কিউইদের দেওয়া ৩২৮ রানের লিড মোকাবিলায় দৃঢ়তা দেখিয়ে এগোচ্ছে বাংলাদেশ।

কিউইদের লিড মোকাবিলায় প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে এসে দারুণ শুরু করেন দুই টাইগার ওপেনার সাদমান ইসলাম ও মাহমুদুল হাসান জয়। ব্যাট হাতে বেশ সাবলীল দেখা যায় তাদের। সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে রানও তোলেন এই যুগল। পানি পানের বিরতি থেকে ফিরে আর স্থায়ী হয়নি বাংলাদেশের ওপেনিং জুটি।

১৯তম ওভারের প্রথম বলে সাদমানকে ফাঁদে ফেরেন ওয়াগনার। বাঁহাতি পেসারের ফুলটস বল অন সাইডে ফ্লিক করতে চেয়েছিলেন সাদমান। কিন্ত বল ব্যাটের ওপরের দিকে লেগে ফিরতি ক্যাচ যায় ওয়েগনারের হাতে। সামনে ঝাপিয়ে ক্যাচ নিয়ে সাদমানকে সাজঘরের পথ দেখান তিনি। তাতেই ৪৩ রানের জুটি ভেঙে ৫৫ বলে ২২ রান করে সাজঘরে ফেরেন এই ওপেনার।

তিনে এসে খুব সতর্কতার সঙ্গে ব্যাট চালান শান্ত। প্রতিপক্ষের বোলারদের তোপের মুখেও জয়কে নিয়ে রান তুলতে থাকেন তিনি। ৩১ ওভার ব্যাট করে এক উইকেট হারিয়ে ৭০ রান করে চা বিরতিতে যায় বাংলাদেশ। ফিরে রান তোলায় মনোযোগ দেন শান্ত। এই ব্যাটারকে দারুণ সঙ্গ দেন ওপেনার জয়। ৫১তম ওভারের দ্বিতীয় বলে রাচীন রবীন্দ্রকে ছক্কা হাঁকিয়ে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় অর্ধশতক তুলে নেন শান্ত।

শুরু থেকে ব্যাট করা জয় দারুণ দৃঢ়তার সঙ্গে কিউ্ই পেসারদের মোকবিলা করে যাচ্ছিলেন। খুবই দেখে শুনে শট খেলার চেষ্টা করে যাচ্ছিলেন তিনি। শান্ত দ্রুত ফিফটি পেলেও জয়ের ফিফটি পেতে অপেক্ষা করতে হয়েছিল বেশি। ১৬৫ বল মোকাবিলার পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রথম অর্ধশতকের দেখা পান তিনি। ইতিমধ্যে এই যুগলের শতরান পেরোনো জুটিতে ভর করে বাংলাদেশের সংগ্রহ এক উইকেট হারিয়ে ১৪৩ রান।

সূত্র : আমাদের সময়
এন এইচ, ০২ জানুয়ারি

Back to top button