জাতীয়

অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগে নর্থ সাউথের দুই ট্রাস্ট্রিকে দুদকে তলব

ঢাকা, ২৬ ডিসেম্বর – শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায়, এফডিআরের নামে প্রতিষ্ঠানের অর্থ লোপাট, সরকারি শুল্ক ফাঁকি দেওয়ারসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্ট্রি বোর্ডের দুই সদস্যকে তলব করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক।

এরা হলেন: বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্ট্রি বোর্ডের সদস্য ও এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি এম এ কাশেম এবং শাহ ফতেহউল্লাহ টেক্সটাইল মিলস ও জালাল আহমেদ স্পিনিং মিলস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ শাহজাহান।

আগামী ২ জানুয়ারি তাদের সেগুনবাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ে উপস্থিত হতে রোববার নোটিস পাঠানো হয়েছে বলে কমিশনের উপ-পরিচালক (জনসংযোগ) মুহাম্মদ আরিফ সাদেক জানান।

অনুসন্ধান কর্মকর্তা দুদকের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ ফয়সাল স্বাক্ষরিত নোটিসে বলা হয়, “শিক্ষার্থীদের কাছ হতে অতিরিক্ত অর্থ আদায়, এফডিআর করার নামে প্রতিষ্ঠানের অর্থ লোপাট, স্ত্রী/স্বজনদের চাকরি দেওয়ার নামে অনৈতিকভাবে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়া, শুল্ক ফাঁকি দিয়ে গাড়ি কেনা এবং অবৈধভাবে বিলাসবহুল গাড়ির ব্যবহার এবং বিভিন্ন অনৈতিক সুযোগ সুবিধা গ্রহণের আড়ালে প্রতিষ্ঠানের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ” পেয়েছে দুদক।

সুষ্ঠু অনুসন্ধানের স্বার্থে তাদের বক্তব্য শোনা ‘প্রয়োজন’ জানিয়ে নোটিসে বলা হয়, “নির্ধারিত সময়ে হাজির হয়ে বক্তব্য দিতে ব্যর্থ হলে বর্ণিত অভিযোগের বিষয়ে আপনার কোনো বক্তব্য নেই মর্মে গণ্য করা হবে।”

গত নভেম্বরে এ অভিযোগ অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয় ‍দুদক। পরে গত ১৩ ডিসেম্বর কমিশনের উপ-পরিচালক মো. জাহাঙ্গীর আলমকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি অনুসন্ধান দল গঠন করা হয়। অপর দুই সদস্য হলেন- দুদকের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ ফয়সাল ও সহকারী পরিচালক মো. সাইফুল ইসলাম।

অভিযোগের বিষয়ে বক্তব্য জানতে আজিম উদ্দিন আহমেদ ও এম এ কাশেমকে একাধিকবার ফোন করলেও তারা ধরেননি; এসএমএস পাঠানো হলেও তাতে সাড়া দেননি।

সূত্র: বিডিনিউজ
এম ইউ/২৬ ডিসেম্বর ২০২১

Back to top button