যশোর

যশোরে বিএনপির ২০ নেতা-কর্মী গ্রেফতার

যশোর, ২৫ ডিসেম্বর – যশোরে অন্তর্ঘাতমূলক কর্মকাণ্ডের অভিযোগে পুলিশের দায়ের করা মামলায় জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ও বাঘারপাড়া পৌরসভার সাবেক মেয়র আব্দুল হাই মনাসহ আরও ২০ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

শুক্রবার দিবাগত রাতে জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে তাদের আটক করা হয়। এই নিয়ে মোট ৩৭ জনকে আটক করলো পুলিশ। এরা আগে ১৭ জনকে আটক করা হয়েছিল।

আটককৃত অন্যরা হলেন, সদর উপজেলার বানিয়ালি গ্রামের আব্দুর রশিদ, যশোর উপশহর ১ নম্বর সেক্টরের বিল্লাল হোসেন, সদরের জগহাটি গ্রামের মল্লিকপাড়ার আব্দুল মান্নান, এনায়েতপুর গ্রামের স্বপন, ফুলবাড়ি গ্রামের জয়নাল আবেদীন, গাইদগাছি গ্রামের মশিয়ার রহমান, সদুল্যাপুর গ্রামের রুহুল আমিন, শ্রীপদ্দী গ্রামের সরদারপাড়ার রুহুল আমিন লাল্টু, ভাতুড়িয়া গ্রামের আসানুর রহমান, চাঁচড়া মজিদপাড়ার মঈন আলী, চাঁচড়া শিব মন্দির এলাকার সোহাগ হোসেন, মণ্ডলগাতি গ্রামের মিরাজ, বাঘারপাড়ার হাবুল্লা গ্রামের মোক্তাদির হোসেন টগর, বেনাপোল পোর্ট থানার গাতিপাড়ার জুলফিকার আলী জুলু, কাগজপুকুরের সোহরাব হোসেন, বাগআঁচড়া সাতমাইল মাঠপাড়ার হারুন মোল্লা, বাগআঁচড়া ২ নম্বর ওয়ার্ডের আমিনুর রহমান মনির, গোড়পাড়ার হারুন খা ও সদর উপজেলার হাশিমপুর বাজারের কামরুল ইসলাম বিশ্বাস।

মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে, পুলিশ গোপন সূত্রে জানতে পারে শুক্রবার সকাল ৬টার দিকে শহরের লালদিঘির পূর্বপাড়ে শ্রী হরিসভা মন্দিরের সামনে কিছু যুবক ধ্বংসাত্মক ও সরকার বিরোধী কর্মকাণ্ডের জন্য জড়ো হয়েছে। সংবাদ পেয়ে পুলিশ সেখানে গিয়ে দেখতে পায়, দুষ্কৃতিকারীরা সরকার ও রাষ্ট্রবিরোধী স্লোগান দিচ্ছে। সেখান থেকে ১৭ জনকে আটক করা হয়। বাকিরা পালিয়ে যায়। আটকদের কাছ থেকে ৬টি ককটেল ও তিনটি ব্যাগে রাখা ছোট সাইজের ৪৯টি পাথর উদ্ধার করা হয়। পরে আটকরা পলাতক আসামিদের পরিচয় প্রকাশ করে।

ওই মামলায় ২৫ ডিসেম্বর রাতে যশোরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে এই ২০ জনকে আটক করে পুলিশ। আটককৃতদের মধ্যে কয়েকজন ওই মামলার এজাহারনামীয় এবং অন্যরা সন্দিগ্ধ।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
এম ইউ/২৫ ডিসেম্বর ২০২১

Back to top button