কক্সবাজার

দুইবার চিৎকার করি, এরপর মুখ বাইন্ধা ফেলে: সেই নারীর মুখে লোমহর্ষক বর্ণনা

কক্সবাজার, ২৪ ডিসেম্বর – রাজধানী ঢাকার যাত্রাবাড়ী থেকে কক্সবাজার বেড়াতে এসে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক নারী। তিনি জানান, স্বামী-সন্তানকে জিম্মি করে হত্যার ভয় দেখিয়ে তাকে ধর্ষণ করেন তিন যুবক। খবর পেয়ে কক্সবাজার শহরের হোটেল-মোটেল জোনের জিয়া গেস্ট ইন নামের হোটেলের একটি কক্ষ থেকে বুধবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে তাকে উদ্ধার করে র‌্যাব-১৫।

ভুক্তভোগী ওই নারী বলেন, ‘আমার স্বামী হাতে পায়ে ধরে মাফ চাইছে। কারণ আমার স্বামী অতটা চালাক চতুর না সরল সোজা মানুষ। আমার স্বামী কইছে ভাই আমরা অন্য জাইগা থিকা আইছি আমারে মাফ কইরা দেন। তার ৫ মিনিট পর একটি সিএনজি নিয়া আইসা তারা আমারে টাইনা উঠায়ে ফেলাইছে। তখন বাস থিকা অনেকগুলা লোক নামছে। দুইবার চিৎকার করছি। করার সময় একজন মুখ ধরছে আরেকজন হাত ধরছে, তারপরে মুখ বাইন্ধা ফেলছে। তারপর ভাঙ্গচোরা রাস্তা দিয়া চিপাচাপার মধ্য নিয়া গিয়ে তিনজন আমারে রেপ করছে।’

এরপর তাকে নেওয়া হয় জিয়া গেস্ট ইন নামে একটি হোটেলে। সেখানে ইয়াবা সেবনের পর আরেক দফা তাকে ধর্ষণ করেন ওই তিন যুবক। ঘটনা কাউকে জানালে সন্তান ও স্বামীকে হত্যা করা হবে জানিয়ে রুম বাইরে থেকে বন্ধ করে ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন তারা। ওই নারী আরো জানান, জিয়া গেস্ট ইনের তৃতীয় তলার জানালা দিয়ে এক যুবকের সহায়তায় কক্ষের দরজা খোলেন তিনি। তারপর ফোন দেন ৯৯৯-এ। পুলিশ তাকে থানায় সাধারণ ডায়রি করার পরামর্শ দেয়। পরে তাদের র‌্যাব উদ্ধার করে।

এদিকে এ ঘটনায় হোটেলের সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে দুজনকে শনাক্ত করা হয়েছে। শনাক্ত দুই যুবক হলেন- কক্সবাজার শহরের বাহারছড়া এলাকার আশিকুল ইসলাম ও আব্দুল জব্বার জয়া। আরেকজনের পরিচয় এখনো জানা যায়নি। আশিক চার মাস আগে জেল থেকে ছাড়া পেয়েছেন। তিনি ছিনতাই, মাদকসহ একাধিক মামলার আসামি। আজ বৃহস্পতিবার (২৩ ডিসেম্বর) সংশ্লিষ্ট স্থানীয় কর্তৃপক্ষ এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

সূত্র : বিডি২৪লাইভ
এন এইচ, ২৪ ডিসেম্বর

Back to top button