ময়মনসিংহ

ময়মনসিংহে আপিল করে প্রার্থিতা ফিরে পেলেন চেয়ারম্যান প্রার্থী

ময়মনসিংহ, ২৪ ডিসেম্বর – ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার নিগুয়ারি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী হাদিউল ইসলাম প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন।

বুধবার (২২ ডিসেম্বর ) সুপ্রীম কোর্টের হাইকোর্ট ডিভিশনের বিচারপতি মামনুন রহমান এবং বিচারপতি খন্দকার দিলুরুজ্জামান সমম্বয়ে গঠিত ডিভিশন বেঞ্চ হাদিউল ইসলামের রিট আবেদনের প্রেক্ষিতে এই আদেশ দেন।

নিগুয়ারি ইউনিয়ন পরিষদ সাধারন নির্বাচনের রির্টানিং কর্মকর্তা ও উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. আনোয়ার হোসেন গত ১২ ডিসেম্বর প্রার্থীতা যাচাই-বাছাইয়ের দিন নিগুয়ারি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে হাদিউল ইসলামের প্রার্থীতা বাতিল করে। প্রার্থীতা বাতিলের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে হাদিউল ইসলাম জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা বরাবর আপীল করে। গত ১৫ ডিসেম্বর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ে আপীল শুনানীতে হাদিউল ইসলামের প্রার্থীতা বাতিলের সিদ্ধান্ত বহাল থাকে। ফলে এই ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা মার্কা প্রার্থী, উপজেলা মৎস্যজীবি লীগের আহবায়ক তাজুল ইসলাম মৃধা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হন। গত ২০ ডিসেম্বর রির্টানিং কর্মকর্তা গণ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে তাজুল ইসলাম মৃধাকে চেয়ারম্যান পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষনা করেন।

এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে হাদিউল ইসলাম হাইকোর্ট ডিভিশনে রিট আবেদন করলে হাইকোর্ট ডিভিশনের বিচারপতি মামনুন রহমান এবং বিচারপতি খন্দকার দিলুরুজ্জামান নিয়ে গঠিত বেঞ্চ তাজুল ইসলাম মৃধাকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষনার আদেশ ছয় মাসের জন্য স্থগিত ঘোষনা করেন। হাদিউল ইসলামের প্রার্থীতা ফিরে পাওয়ার সিদ্ধান্ত দিয়ে তার নামে প্রতীক বরাদ্ধসহ নির্বাচনের সকল কার্যক্রমে তাকে অংশগ্রহনের সুযোগদানের আদেশ দেন হাইকোর্ট।

হাদিউল ইসলামের আইনজীবি এডভোকেট রুহুল আমিন বলেন, হাদিউল ইসলামকে প্রার্থী রেখে নির্ধারিত সময়েই নির্বাচন অনুষ্ঠান করার জন্য হাইকোর্টের পক্ষ থেকে আদেশ দেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে হাদিউল ইসলাম বলেন, হাইকোর্টের আদেশ অনুযায়ি নিগুয়ারি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ভোট হবে। আমি ভোটের জন্য প্রস্ততি নিচ্ছি।

এই নির্বাচনের রির্টানিং কর্মকর্তা ও উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ আনোয়ার হোসেন বলেন, প্রার্থীর আইনজীবির প্রেরিত ডাকবার্তার মাধ্যমে হাইকোর্টের আদেশ সম্পর্কে জানতে পেরেছি। এ ব্যাপারে আমরা নির্বাচন কমিশন ও সংশ্লিষ্টদের অফিসিয়াল সিদ্বান্তের অপেক্ষায় আছি।

সূত্র : বার্তা২৪
এম এস, ২৪ ডিসেম্বর

Back to top button