ক্রিকেট

অবশেষে মুক্ত তারা

ঢাকা, ২০ ডিসেম্বর – করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনে আক্রান্ত দুই নারী ক্রিকেটার অবশেষে মুক্ত হয়েছেন। ২০ দিন চার দেয়ালে বন্দি থাকার পর ছাড়া পেয়েছেন তারা। তাদের সঙ্গে দলের আরো এক সদস্য করোনায় আক্রান্ত হন, তার ধরন ছিল ডেল্টা। তিনিও ছাড়া পেয়েছে ওমিক্রনে আক্রান্ত দুজনের সঙ্গে।

সোমবার (২০ ডিসেম্বর) দুপুরে তাদের ঘরে ফিরতে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিসিবির উইমেন’স উইংয়ের ইনচার্জ তৌহিদ মাহমুদ। তিনি বলেন, ‘রোববার সন্ধ্যায় তারা করোনা নেগেটিভ হয়েছে। আজকে (সোমবার) দুপুরে তারা যে যার বাসায় পথে রওয়ানা হয়েছে। ২০ দিন বন্দি জীবন কাটানোর পর তাদের মধ্যে স্বস্তি ফিরেছে। স্বস্তি ফিরেছে বিসিবিতেও। এই সময়টাতে আমরাও অনেক চাপে ছিলাম।’

ওয়ানডে বিশ্বকাপের কোয়ালিফাইং প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে গত ১ ডিসেম্বর দেশে ফেরে নারী ক্রিকেট দল। দেশে ফিরে হোটেল সোনাগাঁওতে ৫ দিনের কোয়ারেন্টাইনে প্রবেশ করেন তারা।

প্রথম দফার কোভিড পরীক্ষায় সবাই নেগেটিভ হলেও দ্বিতীয় দফার পরীক্ষায় দুজনের কোভিড শনাক্ত হয়। এরপরে আরো একজন আক্রান্ত হন ডেল্টায়। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অধীনে পরীক্ষায় দুজনের দেহে ওমিক্রন শনাক্তের বিষয়টি নিশ্চিত হয়। ১ ডিসেম্বর থেকে কোয়ারেন্টাইনে ছিলেন ওই তিন ক্রিকেটার।

আক্রান্ত তিনজনকে রাখা হয় মুগদা জেনারেল হাসাপাতালে। এছাড়া বাকিদের প্রশিকায় অবস্থিত নির্ধারিত ফ্ল্যাটে রাখা হয়। বুধবার রাতে করোনা মুক্ত হওয়ার পর তারা ছাড়া পান। আর আজ মুক্ত হলেন বাকি তিনজন। আক্রান্তদের নাম প্রকাশ করেনি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) হতে শুরু করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কেউ।

তবে মুক্ত হওয়ার পর নারী দলের সদস্য নাহিদা আক্তার সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকে স্বস্তি প্রকাশ করেছেন, ’২০ দিনের কোয়ারেন্টাইন শেষে আমি এখন মুক্ত। এখন আমার বাড়ি ফেরার পালা। এই সময় যারা আমাকে সমর্থন দিয়েছেন, তাদের সবাইকে ধন্যবাদ। ’

সপ্তাহখানেক বিশ্রামের পরেই নারী দলকে মাঠে নামতে হবে। জানুয়ারিতে মালয়েশিয়ায় হতে যাওয়া কমনওয়েলথ গেমসের বাছাইপর্ব উপলক্ষে মিরপুরে ক্যাম্প করবেন তারা। এছাড়া মার্চে নিউজিল্যান্ডে ওয়ানডে বিশ্বকাপে অংশ নিবেন তারা।

সূত্র : রাইজিংবিডি
এন এইচ, ২০ ডিসেম্বর

Back to top button