জানা-অজানা

বিশ্বের ৮৯ দেশে ছড়িয়েছে ওমিক্রন

করোনভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন ইতিমধ্যে বিশ্বের ৮৯টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। ওমিক্রনের কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হচ্ছে বা গণহারে ছড়িয়ে পড়ছে।

কোনো দেশে ওমিক্রন ছড়িয়ে পড়ার মাত্র দেড় থেকে ৩ দিনের মধ্যেই সেখানে এতে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দ্বিগুণ হয়ে যাচ্ছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) শনিবার এই খবর দিয়েছে।

যেসব দেশের জনগণের উচ্চমাত্রায় রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা আছে সেসব দেশেও দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে ওমিক্রন।

তবে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা এড়ানোর সক্ষমতা বা স্বভাবগত দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার সক্ষমতা নাকি উভয় সক্ষমতার সংমিশ্রণের কারণে ওমিক্রন দ্রুত ছড়াচ্ছে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা গত ২৬ নভেম্বর ওমিক্রনকে করোনার একটি উদ্বেগজনক ধরন হিসেবে আখ্যায়িত করেছিল। ওমিক্রন যে অসুস্থতা সৃষ্টি করে তার তীব্রতাসহ এটি সম্পর্কে এখনও অনেক কিছুই নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, ‘ওমিক্রনের কারনে সৃষ্ট অসুস্থতার তীব্রতা নিয়ে তথ্য এখনও সীমিত। এর তীব্রতার প্রোফাইল এবং কীভাবে এই তীব্রতার বিরুদ্ধে টিকা এবং এতে আক্রান্ত হওয়ার আগের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কতটা কাজ করতে পারে তা বোঝার জন্য আরও তথ্যের প্রয়োজন’।

‘ওমিক্রনের বিরুদ্ধে ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা সম্পর্কে তথ্য এখনো অনেক কম এবং এ বিষয়ে অকাট্য বৈজ্ঞানিক গবেষণাও হয়নি এখনো’।

এম এস, ১৮ ডিসেম্বর

Back to top button