নোয়াখালী

নোয়াখালীতে চেয়ারম্যান প্রার্থীর প্রচারগাড়ি থেকে পড়ে ২ স্কুলছাত্রের মৃত্যু

নোয়াখালী, ১৬ ডিসেম্বর – নোয়াখালী সদর উপজেলায় সরকার দলীয় এক চেয়ারম্যান প্রার্থীর নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিতে গিয়ে পিকআপ ভ্যান থেকে পড়ে দুই স্কুলছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরও পাঁচ জন।

বুধবার রাত ৮টার দিকে সদর উপজেলার চরমটুয়া ইউনিয়নের মনারখিল গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

মারা যাওয়া শিক্ষার্থীরা হলো- রাউলদিয়া গ্রামের মো. মোহনের ছেলে ও স্থানীয় ঠেকেরহাট হাজী আহম্মদউল্লা উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী মেহরাজ উদ্দিন (১২) এবং পশ্চিম ব্রহ্মপুর গ্রামের মো. সবুজের ছেলে ও স্থানীয় উদয়সাধুর হাট ইকরা প্রি-ক্যাডেট একাডেমির পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র মো. সম্রাট (১১)।

সুধারাম মডেল থানা পুলিশ জানায়, বুধবার বিকেল থেকে পিকআপে করে উপজেলার চরমটুয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী কামাল উদ্দিন বাবলুর নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেয় মেহেরাজ, সম্রাটসহ স্থানীয় ৮-১০ জন স্কুলছাত্র। পিকআপটি রাত ৮টার দিকে ১৮-২০ জন কিশোর ও তরুণকে নিয়ে চরমটুয়া ইউনিয়নের মনারখিল গ্রামের পীর মোছলেহ উদ্দিন সাহেবের মাজারের সামনে পৌঁছালে চালক হঠাৎ ব্রেক কষেন। এর ফলে পিকআপের উপরে থাকা মেহরাজ, সম্রাটসহ কয়েকজন ভ্যান থেকে সড়কে পড়ে যায় এবং মেহেরাজ পিকআপের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায়। আহত হয় সম্রাট, রাসেল (২০), জয়নাল (২১)। তাদের প্রথমে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখান থেকে ঢাকায় নেওয়ার পথে বুধবার রাত ২টার দিকে মারা যায় সম্রাট।

সুধারাম মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) প্রমোজ চৌধুরী জানান, চেয়ারম্যান প্রার্থী কামাল উদ্দিন বাবলুর নির্বাচনী প্রচারনায় অংশ নিতে যাওয়া একটি পিকআপে ১৮-২০ জন লোক ছিল। পিকআপটি রাত ৮টার দিকে মনারখিল গ্রামের পীর মোছলেহ উদ্দিন সাহেবের মাজারের সামনে পৌঁছালে চালক হঠাৎ হার্ড ব্রেক কষেন। এর ফলে পিকআপে থাকা লোকজন পড়ে গিয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ঘটনার পরপরই চালক পিকআপটি নিয়ে কৌশলে লক্ষ্মীপুরের দিকে পালিয়ে যায়। তাকে এখন পর্যন্ত শনাক্ত করা যায়নি। এ ঘটনা নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত থানায় কোনো অভিযোগ দায়ের করা হয়নি।

আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী কামাল উদ্দিন বাবলু বলেন, আমার নির্বাচনী প্রচারণায় নয়, বিজয় দিবস উপলক্ষে আয়োজিত র‌্যালিতে অংশ নেওয়া একটি পিকআপের ড্রাইভার হঠাৎ হার্ড ব্রেক কষলে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

সুধারাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাহেদ উদ্দিন বলেন, ঘটনাস্থলেই এক কিশোর এবং আহত অবস্থায় ঢাকা নেওয়ার পথে রাত ২টার দিকে আরেক শিশু মারা যায়। এ ঘটনায় মৃতদের পরিবার থানায় মামলা দিতে চাচ্ছে না। কারণ তারা চেয়ারম্যানের নিকটাত্মীয়। তবে মামলা দিলে পুলিশ মামলা নেবে।

সূত্র: সমকাল
এম ইউ/১৬ ডিসেম্বর ২০২১

Back to top button