পশ্চিমবঙ্গ

মিহিরের বাড়িতে নিশীথ, কোচবিহারের তৃণমূল বিধায়কের দলবদল নিয়ে জল্পনা

কলকাতা, ৩০ অক্টোবর- মিহির-নিশীথ সাক্ষাৎ নিয়ে শুরু হয়েছে জল্পনা। দিন কয়েক আগে তৃণমূল বিধায়ক মিহির গোস্বামী দলের সব পদ থেকে অব্যাহতি চেয়েছিলেন, কটাক্ষ করেছিলেন প্রশান্ত কিশোরের সংস্থাকে। তৃণমূলের পাল্টা প্রশ্ন, নিশীথ কি তৃণমূলে ফিরে আসতে চান? তাই জন্য কি দেখা করতে তিনি গিয়েছিলেন?

কোচবিহার লোকসভার বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক বৃহস্পতিবার কোচবিহার দক্ষিণ বিধানসভার তৃণমূল বিধায়ক মিহির গোস্বামীর বাড়ি গিয়েছিলেন। এর পর গুঞ্জন শুরু হয়, মিহিরবাবু কি দল ছাড়তে চাইছেন? কারণ দিন কয়েক আগে তিনি দলের সব পদ থেকে অব্যাহতি চেয়েছিলেন। এবং কটাক্ষ করেছিলেন তৃণমূলের পরামর্শদাতা-ভোট বিশেষজ্ঞ প্রশান্ত কিশোরের সংস্থাকে।

নিশীথের সঙ্গে তাঁর বেশ কিছুক্ষণ কথা হয়। পরে নিশীথের প্রশংসা করে মিহির গোস্বামী জানান, তিনি আমার অত্যন্ত প্রিয়। তাঁর সঙ্গে আমার দীর্ঘদিনের সম্পর্ক। তিনি এক সময় তাঁদের সঙ্গে একই রাজনীতি করতেন। আগেও তাঁর কাছে আসতেন। এবার একটা সুযোগ হয়েছে। তাই তাঁর কাছে এসেছেন। এর মধ্যে অন্য কিছু খোঁজার কারণ নেই।

বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক বলেন, ‘মিহিরদার মতো মানুষ যদি আমাদের দলে আসেন আসতে চান, তাহলে এটা আমাদের জন্য একটা বড় প্রাপ্তি হবে। তাঁর মতো মানুষ ভারতীয় জনতা পার্টিতে নয়, যে কোনও সংগঠনে গেলেই তারা সমৃদ্ধ হবে।’

তৃণমূলের জেলা সভাপতি পার্থপ্রতিম রায়ের প্রতিক্রিয়া, ওটা রাজনৈতিক সৌজন্য, না অন্য কিছু সেটা ওঁরা ভাল বলতে পারবেন। তবে উল্টোটাও হতে পারে। সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক হয় তো দলে ফিরতে চাইছেন। মিহির গোস্বামী তৃণমূলের বর্ষীয়ান নেতা এবং বিধায়ক। হয় তো তাঁর মধ্যস্থতায় তিনি দলে ফিরতে চাইছেন। এ ধরনের আলোচনা হতে পারে।

আরও পড়ুন: ‘নির্বাচনী ফান্ডের জন্যই দাম বেড়েছে আলু-পিঁয়াজের’, শাসকদলকে তোপ দিলীপের

সম্প্রতি মিহিরবাবু দলের সব পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। তখন তিনি জানিয়েছিলেন, তিনি তাঁর সব দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নিলেন। এর পর তিনি ভোট বিশেষজ্ঞ প্রশান্ত কিশোরের সংস্থাকে কটাক্ষও করেছিলেন। তাঁর মন্তব্য ছিল, কোনও রাজনৈতিক দল যদি কোনও কন্ট্রাক্টরি সংস্থাকে দিয়ে দল চালায়, তাহলে সেই সংগঠনের ক্ষতি হওয়াবার সম্ভাবনা ১০০। এদিকে, নিশীথ প্রামাণিক তৃণমূল করতেন। তবে ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটের আগে তিনি নাম লেখান বিজেপিতে। বিজেপির টিকিটে জয়ী লোকসভা ভোটে জয়ী হয়েছেন।

সূত্রঃ আজ তক
আডি/ ৩০ অক্টোবর

Back to top button