ফুটবল

ফুটবল কিংবদন্তি ম্যারাডোনার ৬০তম জন্মদিন আজ

ফুটবল কিংবদন্তি দিয়েগো ম্যারাডোনার ৬০তম জন্মদিন আজ। করোনা মহামারীতে কোয়ারেন্টাইনে থাকায় বিশেষ দিনটি একাই কাটাতে হচ্ছে ফুটবল জাদুকরকে। আর্জেন্টিনার বুয়েন্স আইরেস প্রদেশের লানুস শহরের এক দরিদ্র পরিবারে ১৯৬০ সালের ৩০ অক্টোবর জন্মগ্রহণ করেন ম্যারাডোনা। বাবা-মায়ের পঞ্চম সন্তান তিনি। তিনিই তার বাবা-মায়ের প্রথম পুত্র সন্তান। ম্যারাডোনা বেড়ে ওঠেন ভিয়া ফিওরিতোতে। শৈশবেই ফুটবলের প্রেমে পড়েন তিনি।

মাত্র আট বছর বয়সে আর্জেন্টিনোস জুনিয়র্সের যুব দলে যোগদান। জাদুকরী পায়ের নৈপুণ্যে ফুটবল সংগঠকদের নজরে আসতে বেশি সময় লাগেনি তার। তারপর বোকা জুনিয়র্সকে আর্জেন্টাইন লিগ জিতিয়ে মাত্র ২১ বছর বয়সেই কাতালান জায়ান্ট বার্সেলোনায় নাম লেখান ম্যারাডোনা।

ম্যারাডোনাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছে তার সাবেক ক্লাব বার্সেলোনা। ক্লাবে থাকাকালীন এল ক্ল্যাসিকো ম্যাচে করা ম্যারাডোনার একটি গোলের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করেছে বার্সেলোনা।

ম্যারাডোনা বার্সেলোনাতে দুইটি মৌসুম কাটিয়েছিলেন (১৯৮২-৮৩ ও ১৯৮৩-৮৪)। ক্লাবের হয়ে প্রথম বছর তিনি ২৩টি গোল করেছিলেন। দ্বিতীয় বছর করেছিলেন ১৫টি গোল। ম্যারাডোনাকে দলে নিতে বোকা জুনিয়র্সকে ৬ মিলিয়ন ইউরো দিয়েছিল বার্সেলোনা।

ম্যারাডোনা বার্সেলোনার হয়ে কোপা দেল রে, সুপারকোপ ডি এস্পানা ও লা লিগা শিরোপা জিতেছিলেন।১৯৮৪ সালে তিনি বার্সেলোনা ছেড়ে নাপোলিতে পাড়ি জমিয়েছিলেন।

আর্জেন্টিনার জাতীয় দলের হয়ে ১৯৭৭ সালে অভিষেক হয় ম্যারাডোনার। ১৯৮৬ সালে মাত্র ২৫ বছর বয়সে অনেকটা একক প্রচেষ্টায় আর্জেন্টিনাকে স্বপ্নের বিশ্বকাপ জেতান তারকা এ ফুটবলার। বিশ্বকাপের ওই আসরে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে করা তার গোলটিকে ‘হ্যান্ড অব গড গোল’ বা শতাব্দীর সেরা গোল হিসেবেও অভিহিত করা হয়ে থাকে।

১৯৯০ বিশ্বকাপেও আর্জেটিনাকে ফাইনালে তুলে নিয়ে এসেছিলেন ফুটবলের জীবন্ত এ কিংবদন্তি। পরে ডোপ টেস্টে পজিটিভ হলে ১৫ মাসের নিষেধাজ্ঞা খড়গ নেমে আসে তার ওপর। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে মাঠে ফিরে এলেও ম্যারাডোনাকে তার স্বাভাবিক ছন্দে ফিরে আসতে দেখা যায়নি।

আরও পড়ুন: অবশেষে বার্সা বোর্ড সভাপতি বার্তোমেউর পদত্যাগ

কিছু শিরোপা আর ফুটবলের চোখ ধাঁধানো সব মুহূর্ত উপহার দেয়া এ আর্জেন্টাইনের ক্যারিয়ারের ভালো মুহূর্তগুলো মূলত ১৯৯৪ বিশ্বকাপেই শেষ হয়ে যায়। ফুটবলকে বিদায় জানানোর আগে ২১ বছরের ক্যারিয়ারে ম্যারাডোনা ৬৭৯ ম্যাচে ৩৪৬ গোল করেছেন।

খেলোয়াড় জীবনের পরবর্তী সময়ে কোচ হিসেবে আর্জেন্টিনা দলের দায়িত্ব নেন ম্যারাডোনা। তবে কোচিংয়ে ততটা সফল হতে পারেননি ফুটবলের এ জাদুকর।

সূত্র: ঢাকাটাইমস

আডি/ ৩০ অক্টোবর

Back to top button