পশ্চিমবঙ্গ

শোভন-বৈশাখীকে নিয়ে বিজেপি কী ভাবছে, স্পষ্ট করলেন দিলীপ ঘোষ

কলকাতা, ৩০ অক্টোবর- গত বছর বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরও শোভন চট্টোপাধ্যায়কে দেখা য়ায় ভাইফোঁটা নিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ি পৌঁছে যেতে। সঙ্গে ছিলেন বৈশাখীও। একবছর ঘুরতে চলল, আরও একটা ভাইফোঁটা আসতে চলেছে। তবে বিজেপির অন্দরে শোভন কাঁটা যেন একইভাবে অস্বস্তিকর রয়ে যাচ্ছে। এদিকে, মোদীর ভার্টুয়াল সভার দিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপহার পাঠানো ও তার বদলে শোভনের পাল্টা উপহার প্রেরণ পরিস্থিতিকে আরও তুঙ্গে রাখে। এমন অবস্থায় শোভন বৈশাখীকে নিয়ে বক্তব্য পেশ করলেন খোদ বঙ্গ বিজেপির রাজ্যসভাপতি দিলীপ ঘোষ।

বিজেপির ‘শোভন’ অস্বস্তি

ষষ্ঠীর দিন মোদীর ভার্চুয়াল সভায় যোগ দেননি শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপির অন্দরে বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ তৈরি হতেই দেখা যায়, সেইদিনই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শোভন চট্টোপাধ্যায়কে পুজোর উপহার দেন। এরপর পাল্টা শোভনও ‘দিদিকে’ উপঢৌকন পাঠাতে পিছপা হয়নি। গোটা গতিবিধি নিয়ে রীতিমতো বিরক্ত বঙ্গবিজেপি। একদিকে শোভোনের মমতা প্রীতি অন্যদিকে, দলের রাজ্যকমিটিতে জায়গা পেয়েও শোভনের নিষ্ক্রিয়তা, সবমিলিয়ে বিজেপির অন্দরে অন্যতম অস্বস্তি হয়ে উঠছেন তৃণমূল ছেড়ে আসা শোভন।

শোভন-কার্ড ও বিজেপি

রাজকীয়ভাবে দিল্লির বিজেপি হেডকোয়ার্টর্সে শোভন চট্টোপাধ্যায় পদ্মশিবিরে যোগ দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে বিষোদ্গার করেছিলেন গত বছরেই। গতবছরের শেষ থেকে যদিও ছবি পাল্টাতে থাকে। আর সেই পরিবর্তিত ছবি এখনও ধরে রেখেছেন শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। এমন পরিস্থিতিতে রাজ্যবিজেপি ২০২১ এর আগে তাঁদের নিয়ে কোন ভাবনা চিন্তা করেন সেদিকে নজর সকলের।

আরও পড়ুন: ‘নির্বাচনী ফান্ডের জন্যই দাম বেড়েছে আলু-পিঁয়াজের’, শাসকদলকে তোপ দিলীপের

শোভনদের নিয়ে দিলীপ বার্তা

এমন পরিস্থিতির পর এদিন দিলীপ ঘোষ ইকো পার্কে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন, ‘ শোভন ও বৈশাখী দুজনেই সচেন মানুষ। ওঁরা কখন কী করতে হয়, তা জেনেই রাজনীতিতে এসেছেন।… ‘

বিজেপির কাজের দায়িত্বভার নিয়ে শোভন প্রসঙ্গে দিলীপ

এদিন দিলীপ ঘোষ শোভন প্রসঙ্গে বক্তব্য় রাখতে গিয়ে আরও বলেন। বঙ্গ বিজেপির রাজ্যসভাপতি বলেন,’ওঁরা(শোভন ও বৈশাখী) যখন রাজি হবেন, যে কাজ করতে চাইবেন, সেই কাজ দেওয়া হবে।’

এন এইচ, ৩০ অক্টোবর

Back to top button