জাতীয়

সহিংসতার ‘শঙ্কা’ নিয়ে এক হাজার ইউপিতে ভোট কাল

ঢাকা, ২৭ নভেম্বর – ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন ঘিরে সহিংসতার আশঙ্কার মধ্যেই দেশের ১২৩ উপজেলার এক হাজার ইউপিতে রবিবার ভোট গ্রহণ করা হবে। এছাড়া অষ্টম ধাপের নয়টি পৌরসভাতেও ভোট গ্রহণ হবে এদিন।

এসব নির্বাচনে সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত একটানা ভোটগ্রহণ চলবে। এদিকে তৃতীয় ধাপের এ ইউপি ভোটের আগেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন ৫৬৯ জন । তাদের মধ্যে চেয়ারম্যান ১০০ জন, সংরক্ষিত সদস্য ১৩২ জন ও সাধারণ সদস্যা ৩৩৭ জন। গত শুক্রবার মধ্যরাতে এসব নির্বাচনী এলাকায় প্রচারের সময় শেষ হয়েছে।

নির্বাচন কমিশনের (ইসি) প্রতি ‘অনাস্থা’দেখিয়ে বিএনপি এ নির্বাচন বর্জন করলেও ধাপে ধাপে অনুষ্ঠিত ইউপি ভোটের আগে-পরে ও ভোটের দিন সহিংসতায় এ পর্যন্ত অন্তত ৪৩ জন নিহত হয়েছে ।

এদিকে তৃতীয় ধাপের এ ইউপি ভোটকে কেন্দ্র করে বেশ কিছু নির্বাচনী এলাকায় আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠে এবার। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ইসি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, প্রশাসন এবং নির্বাচন কর্মকর্তাদের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক করেছে। পাশাপাশি সব পক্ষের প্রতি কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়ে আসছে সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটি। গত শুক্রবার নির্বাচনী সহিংসতায় বিভিন্ন জায়গায় তিনজনের মৃত্যু হয়। এমন পরিস্থিতিতেও শনিবার নির্বাচন কমিশনের সভা শেষে ইসি সচিব হুমায়ূন কবীর খোন্দকার সাংবাদিকদের বলেন, ‘এই মুহূর্তে কোনো আশঙ্কার জায়গা আছে বলে মনে করছি না।’ নির্বাচন কমিশন অবশ্যই প্রত্যাশা করে রবিবার ভোট ভালো হবে। ‘

তবে, ভিন্নমত পোষণ করেছেন স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার। তৃতীয় ধাপের এ নির্বাচনে সহিংসতার শঙ্কা রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ইসি কঠোর ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ হলে সহিংসতা চলবেই।’

তৃতীয় ধাপের এ ভোটে তফসিল ঘোষণা করা হয়েছিল ১০০৭টি ইউপির। বিভিন্ন কারণে স্থগিত হয়েছে ৭টি ইউপির ভোট। এ নির্বাচনে ভোটার ২ কোটি ১ লাখ ৪৮ হাজার ২৭৮ জন। ভোটকেন্দ্র ১০,১৫৯টি ও ভোটকক্ষ ৬১,৮৩০টি। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিতদের বাদ দিলে ভোটের লড়াইয়ে আছেন ৫০ হাজার ১৪৬ জন প্রার্থী। তাদের মধ্যে ৪ হাজার ৪০৯ জন চেয়ারম্যান পদে, ১১ হাজার ১০৫ জন সংরক্ষিত সদস্য পদে এবং ৩৪ হাজার ৬৩২ জন সাধারণ সদস্য পদে লড়বেন।

এদিকে নির্বাচনে অস্ত্রের ব্যবহার প্রসঙ্গে ইসি সচিব হুমায়ূন কবীর খোন্দকার বলেন, ‘বৈধ অস্ত্রের তথ্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে থাকে। ম্যাজিস্ট্রেট একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে। সেটি প্রদর্শন করা যাবে না। অবৈধ অস্ত্রগুলো তারা ব্যবহার করে । অবৈধ অস্ত্রের ক্ষেত্রে কোন ছাড়া নেই।’

করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যেই প্রথম ধাপে ২১ জুন ২০৪ ইউপি এবং ২০ সেপ্টেম্বর ১৬০ ইউপির ভোট হয়। দ্বিতীয় ধাপে ৮৪৬ ইউপির ভোট হয় ১১ নভেম্বর। তৃতীয় ধাপে ১০০০ ইউপির ভোট আজ রবিবার। এরপর ২৩ ডিসেম্বর চতুর্থ ধাপে ৮৪০ ইউপিতে এবং পঞ্চম ধাপে দেশের ৭০৭ ইউপিতে ৫ জানুয়ারি ভোট হবে। দেশে প্রায় সাড়ে চার হাজার ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে। আসছে ফেব্রুয়ারিতে নিজেদের মেয়াদ শেষের আগেই নির্বাচন উপযোগী সব ইউপির ভোট ধাপে ধাপে শেষ করার পরিকল্পনা রয়েছে ইসির।

সূত্র: দেশ রূপান্তর
এম ইউ/২৭ নভেম্বর ২০২১

Back to top button