ফ্যাশন

লম্বা চুল এবং স্কিনি জিন্স ছাড়ার সময়ের নারীরা

ব্রিটেনের মোটামুটি বয়স্ক ২,০০০ নারীদের একটি জরিপ চালানো হয় এবং বেশিরভাগ নারী তাতে বলেছেন যে, ৪৬ বছর বয়সে আপনার লম্বা চুলগুলো কেটে ছোট করার সময় হয় এবং ৪৭ বছর বয়সে আপনার স্কিনি জিন্সগুলো কেবল হ্যাঙ্গারেই ঝুলিয়ে রাখতে হয়। এছাড়া এই সময়টাতে আরও অনেক কিছু ছেড়ে দেওয়ার সময় হয় যা আপনি যুবতী থাকা অবস্থায় করতেন। চলুন সেই জরিপের তথ্য অনুযায়ী সেগুলো দেখে নেওয়া যাক।

১। ৩৮ বছর বয়সে ট্যাটু করা বন্ধ করা।
ডেমি মিরেন হয়তো এই কথাটা বুঝে উঠতে পারেন নি। ৭০ বছর বয়সেই তিনি সমানে শরীরে ট্যাটু করে যাচ্ছেন। তিনি কখনও পরোয়া করেন না অন্যরা কীভাবে চলছে। এখনও তিনি ‘স্ট্রিপার শপস’ থেকে জুতা ক্রয় করেন এবং ‘ড্রিংক এন্ড ড্রাইভ’ এর মতো চলাফেরা করেন।

২। ৩৪ এ সেলফি উঠানো বন্ধ করা।
আপনি কিও মনে করেন- এই বয়সে সেলফি উঠাতে গিয়ে ক্যামেরা ভেঙ্গে ফেলতে পারেন? তার চেয়ে এই কথাটা হয়তো আরও সহজে মানতে পারেন- যখন কিম কার্দাশিয়ান সেলফি উঠানো বন্ধ করবেন, তখন আমিও সেলফি উঠানো বন্ধ করব। ৩৬ বছর বয়সেও তিনি এখনও সেলফি উঠানো বন্ধ করেন নি।


৩। ৪৪ এ ক্লাবে যাওয়া বন্ধ করা।
এটা হয়তো আপনাকে মানতে হবে। কারণ রাত ১১ টার পর ঘুমিয়ে পড়লে এসব শব্দ হয়তো আপনার কানে আর খুব বেশি আসবে না। এছাড়া ৪৫ এর পর আপনি হয়তো কোন নাচেও যেতে পারবেন না।

৪। ৪৫ এর পর মিউজিক ফেস্টিভালে যাওয়া বন্ধ করা।
৪৫ বছর বয়সের পর মিউজিক ফেস্টিভালে যাওয়ার আগে আপনি হয়তো কয়েকবার চিন্তা করবেন। তবে রোলিং স্টোনস, বব ডাইলান, দ্যা হু, পল ম্যাককার্টনির মতো তারকারা স্টেজে উপস্থিত থাকলে আপনি কতক্ষন নিজেকে ঘরের ভিতরে রাখতে পারবেন সেটা সন্দেহ।

৫। টেকনজির ব্যবহার কমিয়ে দেবেন।
আশ্চর্যজনক হলেও সত্যি, অনেকে বলেছেন ৪৭ বছর বয়সে টুইটার বন্ধ করে দেওয়া এবং ৪৯ বছর বয়সে ফেসবুক চালান বন্ধ করা উচিৎ। কিন্তু ২০১৪ সালের ৬৫+ বছর বয়সীদের মধ্যে একটি জরিপ চালিয়ে দেখা যায়- তাদের মধ্যে শতকরা ৫৬ ভাগই ফেসবুকে আছেন।

অতঃপর দিন শেষে আপনি হয়তো এসবকিছুকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে বলবেন, কে মানে এইসব!

এম ইউ

Back to top button