জাতীয়

ধর্ষণ, নারী নির্যাতন বেড়েছে

ঢাকা, ২২ নভেম্বর – করোনা মহামারির মধ্যে দেশে মামলার সংখ্যা কমেছে। তবে বেড়েছে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের হার। মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলোর ২০২০-২১ অর্থবছরের কার্যাবলী সম্পর্কিত বার্ষিক প্রতিবেদন থেকে এই তথ্য জানা গেছে।

সোমবার (২২ নভেম্বর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে এই প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী ও সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীরা বৈঠকে যোগ দেন।

বৈঠক শেষে সচিবালয়ে ব্রিফিংয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, রুলস অব বিজনেস অনুযায়ী প্রতি অর্থবছরে সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সম্পাদিত কার্যাবলী সম্পর্কিত বার্ষিক প্রতিবেদন মন্ত্রিসভায় উপস্থাপন করা হয়ে থাকে।

২০২০-২১ অর্থবছরের বার্ষিক প্রতিবেদনের উল্লেখযোগ্য তথ্য-উপাত্ত তুলে ধরে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, গত অর্থবছরে মোট মামলার সংখ্যা ছিল ছয় লাখ ৬১ হাজার। চলতি অর্থবছরের শেষে এসে দেখা যায় পাঁচ লাখ ৬৯ হাজার ৩৬২টি মামলা হয়েছে। মামলা কমেছে প্রায় ৯১ হাজার।

তিনি বলেন, ‘গত অর্থবছরে ডাকাতির মামলা ছিল ৩৩৬টি, এ বছরে ৩২১টি। রাহাজানি ছিল ৯১৯টি, এ বছরে বেড়ে হয়েছে এক হাজার ৪৮টি। অস্ত্র আইনে মামলা ছিল দুই হাজার ১৬৭টি, এ বছর এক হাজার ৭৪৭টি। খুনের মামলা ছিল তিন হাজার ৪৮৫টি, এ বছরে তিনি হাজার ৪৫৮টি।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব আরও জানান, গত বছরে ধর্ষণ মামলা ছিল পাঁচ হাজার ৮৪২টি, এ বছরে সাত হাজার ২২২টি। নারী নির্যাতন ছিল ১২ হাজার ৬৬০টি, এবার বেড়ে হয়েছে ১৪ হাজার ৫৬৭টি। গত অর্থবছরে এর আগের বছরের চেয়ে ধর্ষণ বেড়েছে এক হাজার ৩৮০টি ও নারী নির্যাতন বেড়েছে এক হাজার ৯৭টি।

আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে তিনি বলেন, ৩০ জুন পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির রিপোর্ট আমাদের কাছে এসেছে। তবে নির্বাচন বা তেলের ঘটনাগুলো আসেনি।

মামলা প্রায় ৯০ হাজার কমে গেছে। ডিজিটাল আদালত হওয়ার ফলে বাসায় থেকে বা অন্য স্থানে থেকে মামলাগুলো পরিচালনা করা হয়েছে বলে জানান সচিব।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ তিন লাখ ২৮ হাজার ৫৮২ কোটি টাকা, রাজস্ব আদায় বৃদ্ধির হার ২৩ দশমিক ৫৭ শতাংশ। রপ্তানির পরিমাণ ১৫ দশমিক ১২ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৮ দশমিক ৭৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসাবে ৫৩ হাজার ৩৪০টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের বসবাসের জন্য গৃহ নির্মাণ করা হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের মাধ্যমে ২০২০-২১ অর্থবছরে মোট ৫৪ হাজার ৪৩৪টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে পুনর্বাসন করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ২০২০-২১ অর্থবছরে সামাজিক নিরাপত্তা খাতের অর্থ বরাদ্দ ৯৫ হাজার ৫৭৪ কোটি টাকায় উন্নীত হয়, যা জাতীয় বাজেটের ১৬ দশমিক ৮৩ শতাংশ এবং জিডিপির ৩ দশমিক ০১ শতাংশ।

সূত্র: জাগো নিউজ
এম ইউ/২২ নভেম্বর ২০২১

Back to top button