ক্রিকেট

‘১৫ ওভার পর্যন্ত আমাদের একজন ব্যাটসম্যানের ব্যাটিং করা উচিত’

ঢাকা, ২০ নভেম্বর – একটি ভালো দিনের প্রত্যাশায় বাংলাদেশ। ২২ গজে যে দিনটি হবে রঙিণ। নিজেদের ব্যাট হাসবে। বল কথা বলবে। ফিল্ডিংও হবে তুখোড়। কিন্তু সোনালি সেই দিন বাংলাদেশের ভাগ্যে কি লিখা আছে?

বলা হয়ে থাকে, ভাগ্য নিজেদের গড়ে নিতে হয়। বাংলাদেশ সেই কাজটাই করতে পারছে না। হতশ্রী পারফরম্যান্সে এলোমেলো মাহমুদউল্লাহর দল। ব্যাটিং হচ্ছে না। বোলিংয়েও নেই প্রাণ। ফিল্ডিংটা একেবারে তলানিতে। সব মিলিয়ে ঘুরেফিরে সেই একই ফল।

টানা হারে ক্লান্ত বাংলাদেশ। বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভে হারের যে যাত্রা শুরু হয়েছিল তা এখনও থামেনি। সব মিলিয়ে সাত ম্যাচ বাংলাদেশ জয়ের মুখ দেখেনি। মাহমুদউল্লাহর কাছেও হারের নতুন কোনো কারণ নেই। ম্যাচ শেষে পুরস্কার বিতরণী মঞ্চে ব্যাটসম্যানদের কাঠগড়ায় দাড় করিয়েছেন বাংলাদেশের অধিনায়ক।

তার ভাষ্য,‘আমাদের শুরুটা আজ খারাপ ছিল না। আফিফ এবং শান্ত ভালো ব্যাটিং করেছে। আমি ও শান্ত চেয়েছিলাম ভালো একটি জুটি গড়তে। কিন্তু আমরা শেষ ওভারগুলিতে নিজেদের পরিকল্পনা প্রয়োগ করতে পারিনি। আমি মনে করি, আমাদের মতো দলের ১৫ ওভার পর্যন্ত একজন ব্যাটসম্যান থিতু হয়ে থাকা উচিত। কিন্তু আমরা সেসব করতে পারিনি।’

আজও ফিল্ডিংয়ে দুই ক্যাচ ছেড়েছে বাংলাদেশ। প্রথমটা সাইফ হাসান। দ্বিতীয়টা তাসকিন আহমেদ। দুটোই ব্যাটসম্যান ফখর জামানের। নিজেদের ফিল্ডিং নিয়ে মাহমুদউল্লাহ বলেছেন, ‘ছেলেরা অনুশীলনে যথেষ্ট নিবেদন দেখায়। ক্যাচ ধরে এবং প্রত্যেকটি কাজ ঠিকঠাকভাবে করে। কিন্তু ম্যাচে ভুল করে ফেলছে।’

বোলাররা স্বল্প পুঁজি নিয়ে লড়াই করতে পারছে না। পাকিস্তানের আজ টার্গেট ছিল মাত্র ১০৯। সেই লক্ষ্য তাড়া করতে গিয়ে শুরুতেই বাবর আজম আউট। কিন্তু এরপর আর কোনো লড়াই করতে পারেনি বাংলাদেশ। তবুও বোলারদের পারফরম্যান্সে খুশি মাহমুদউল্লাহ, ‘শেষ পাঁচ-ছয় মাস আমাদের বোলিং আক্রমণ দারুণ করছে। পেসার ও স্পিনাররা সমানতালে পারফর্ম করছে। কিন্তু আমাদের ব্যাটসম্যানরাই ভালো কিছু করতে পারছে না।’

সূত্র : রাইজিংবিডি
এম এস, ২০ নভেম্বর

Back to top button