ইউরোপ

করোনার চতুর্থ ঢেউয়ে নাকাল জার্মানি

বার্লিন, ১৯ নভেম্বর – জার্মানিতে আঘাত হেনেছে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মহামারীর চতুর্থ ঢেউ। দেশটিতে একদিনে সংক্রমিত হয়েছেন ৬৫ হাজারের বেশি। মারা গেছেন আড়াই শতাধিক।

মহামারী পরিস্থিতির বিষয়ে চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল বলেছেন, ‘কোভিডের চতুর্থ স্রোত সর্বশক্তি দিয়ে আঘাত হেনেছে দেশে।’

জার্মানির সংক্রামক রোগ নিয়ন্ত্রক কেন্দ্র ‘রবার্ট কক ইনস্টিটিউট’ (আরকেআই) জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৬৫ হাজার ৩৭১ হাজার সংক্রমণ ধরা পড়েছে। আগের দিনের তুলনায় এই সংখ্যা অন্তত ১২ হাজার ৫৪৫ জন বেশি।

আরকেআই-প্রধান লোথার ওয়েলার বলেন, ‘দৈনিক সংক্রমণের এই সংখ্যাটি কিন্তু সঠিক নয়। এটি শুধু চিহ্নিত হয়েছে। আসল সংখ্যা এর দুই থেকে তিন গুণ বেশি।’

গত ২৪ ঘণ্টায় জার্মানিতে ২৬৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। মহামারীর শুরু থেকে এখন পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯৮ হাজারে।

ইউরোপের দেশগুলোতে এমনিতেই জনসংখ্যা কম। জার্মানিতে মাত্র ৮ কোটি লোকের বাস। পশ্চিম ইউরোপে সবচেয়ে কম টিকাদান হয়েছে এ দেশে। প্রায় ৬৭ শতাংশ নাগরিকের টিকাদান সম্পন্ন হয়েছে। আরও ৩৩ শতাংশ এখনো টিকাদানের বাইরে।

বিশেষজ্ঞদের অনুমান, এই কারণেই সংক্রমণ এই হারে বেড়েছে দেশটিতে। মূলত সংক্রমণ ঘটছে করোনার ভারতীয় ‘ডেল্টা’ ধরনে। এটি এমনিতেই অতি সংক্রামক।

বার্লিনের সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ টোবিয়াস কুর্থ বলেন, ‘সংক্রমণ বৃদ্ধির আরও একটি কারণ রয়েছে। এ বছরের শুরুতে যাদের টিকা দেওয়া হয়েছে, বছরের শেষে তাদের অনেকেরই দেখা যাচ্ছে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা চলে গেছে।’

চ্যান্সেলর মেরকেল বলেছেন, ‘সামনে শীত। এভাবে যদি সংক্রমণ বাড়তে থাকে, হাসপাতালের আইসিইউ ভরে যাবে। তখন আর কিছু করা যাবে না।’

সূত্র : দেশ রূপান্তর
এন এইচ, ১৯ নভেম্বর

Back to top button