ঢাকা

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় চারজনের অপমৃত্যু

ঢাকা, ১১ নভেম্বর – রাজধানীর হাতিরঝিল, খিলক্ষেত, শাহবাগ ও যাত্রাবাড়ীতে পৃথক ঘটনায় চারজনের অপমৃত্যু হয়েছে। তাদের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

বুধবার (১০ নভেম্বর) রাত সাড়ে ১১টা থেকে বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) ভোর ৫টার মধ্যে ঘটনাগুলো ঘটে।

মগবাজারের ব্যাটারি গলি এলাকায় সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় গামছা পেঁচিয়ে ফাঁস দিয়ে আবু বকর সিদ্দিক (১৯) নামে এক তরুণ আত্মহত্যা করেছেন।

বুধবার (১০ নভেম্বর) রাত সাড়ে ১১টার দিকে ঘটনাটি ঘটে। অচেতন অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রাত ১২টার দিকে তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

মৃতের ভাই মো. বাদশা মিয়া জানান, আমার ভাই মায়ের কাছে ১৫ হাজার টাকা চায়, বিশেষ কাজের কথা বলে। মা টাকা দিতে না চাইলে অভিমানে তার নিজের রুমে গিয়ে দরজা আটকে দেয়। পরে ডেকে না পেয়ে দরজা ভেঙে তাকে উদ্ধার করি। ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে আসলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

অন্যদিকে, রাজধানীর যাত্রাবাড়ির কুতুবখালী এলাকায় মদ্যপানে আল-আমিন (২৬) নামে একজনের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (১০ নভেম্বর) রাত পৌনে ১২টার দিকে ঘটনাটি ঘটে। অচেতন অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসলে রাত সাড়ে ১২টার দিকে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতের ভাই নাঈম জানান, রাত সাড়ে ১১টার দিকে আমার ভাইয়ের এক বন্ধু ফোনে জানায় সে রাস্তায় বমি করছে। আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে অচেতন অবস্থায় পাই। সেখান থেকে দ্রুত ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

রাজধানীর খিলক্ষেত বোর্ডঘাট নামপাড়া এলাকায় নির্মাণাধীন ভবনে কাজ করার সময় পড়ে গিয়ে মো. শাকিল (২৮) নামে এক নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।

বুধবার (১০ নভেম্বর) দিনগত রাত তিনটার দিকে দুর্ঘটনাটি ঘটে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ভোর পাঁচটার দিকে মৃত ঘোষণা করেন।

শাহবাগ থানার শাহবাগ জিরো পয়েন্ট এর সামনে থেকে অজ্ঞাত এক বৃদ্ধের মরদেহ উদ্ধার করেছে শাহবাগ থানা পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (১১ অক্টোবর) সকাল ৬টার সময় মরদেহ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

শাহবাগ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মিন্টু মিয়া জানান, এক বৃদ্ধের মরদেহ দেখতে পাই। পরে আইনি প্রক্রিয়া শেষে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়। তার নাম পরিচয় এখনো জানা যায়নি। বিস্তারিত জানার চেষ্টা চলছে। আমরা সিআইডি ক্রাইম সিনকে কবর দিয়েছি। ফিঙ্গারপ্রিন্টের মাধ্যমে তার নাম নাম জানা যাবে।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, চারজনের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়গুলো সংশ্লিষ্ট থানাকে অবগত করা হয়েছে।

সূত্র: জাগো নিউজ
এম ইউ/১১ নভেম্বর ২০২১

Back to top button