জানা-অজানা

ইতিহাসে ১১ নভেম্বর ঘটে যাওয়া নানান ঘটনা

প্রতিদিনের উল্লেখযোগ্য ঘটনা কালক্রমে রূপ নেয় ইতিহাসে। সেসব ঘটনাই সেখানে স্থান পায়, যা কিছু ভালো, যা কিছু প্রথম, যা কিছু মানবসভ্যতার অভিশাপ-আশীর্বাদ। ইতিহাসের দিনপঞ্জি মানুষের কাছে সব সময় গুরুত্ব বহন করে। এ গুরুত্বের কথা মাথায় রেখেই বাংলাদেশ জার্নালের পাঠকদের জন্য নিয়মিত আয়োজন ‘আজকের এই দিনের ইতিহাস’।

আজ ১১ নভেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার। ২৬ কার্তিক ১৪২৮। এক নজরে দেখে নিন ইতিহাসের এ দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যুদিনসহ গুরুত্বপূর্ণ আরও কিছু বিষয়।

ঘটনাবলি:

১৪৯৮ – পর্তুগালের বিখ্যাত নাবিক ভাস্কো দা গামার সমূদ্র অভিযান শুরু হয়।
১৭৯৩ – শিক্ষাব্রতী ধর্মযাজক উইলয়াম কেরি ইংল্যান্ড থেকে কলকাতায় এসে পৌঁছান।
১৮৬৬ – কেশব চন্দ্র সেনের নেতৃত্বে কলকাতায় ভারতবর্ষীয় আদি ব্রহ্মসমাজ প্রতিষ্ঠিত হয়।
১৯১৮ – মিত্রশক্তি ও জার্মানির মধ্যে যুদ্ধবিরতি চুক্তির মধ্য দিয়ে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সমাপ্তি ঘটে।
১৯৪২ – দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় নাৎসিরা ফ্রান্স দখল করে।
১৯৫২ – ক্যালিফোর্নিয়ায় প্রথম ভিডিও রেকর্ডারের কার্যক্রম প্রদর্শিতি হয়।
১৯৫৩ – পোলিও রোগের ভাইরাস আবিস্কৃত হয়।
১৯৬৬ – এডুইন ইউগেন অলড্রিন এবং জেমস এ লোভেল নভোযান জিনিনি-১২ তে চড়ে চারদিনের সফরে মহাশূন্যে যাত্রা করেন।
১৯৬৮ – মালদ্বীপের প্রজাতন্ত্র গঠিত হয়।
১৯৭০ – ইসলামী সম্মেলন সংস্থা (ওআইসি) প্রতিষ্ঠিত হয়।
১৯৭২ – বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠা করা হয়।
১৯৮২ – দক্ষিণ লেবাননে ঘাঁটি গেড়ে বসা ইহুদীবাদী ইসরাইলের সেনা কমান্ডের সদর দফতরে শহীদ আহমাদ কাসির ভয়াবহ বোমা হামলা চালান।
১৯৮৯ – বার্লিন প্রাচীর ভেঙ্গে ফেলার কাজ শুরু হয়।
১৯৯১ – কিউবা থেকে সোভিয়েত ফৌজ প্রত্যাহারের কথা ঘোষণা করা হয়।
১৯৯৫ – মানবাধিকার লংঘনের অভিযোগে কমনওয়েলথ থেকে নাইজেরিয়ার সদস্যবাতিল করা হয়।
১৯৯৬ – বাংলাদেশ ভারত সীমান্ত বাণিজ্য চালুর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

জন্ম:

১৪৯৩ – পারাচেলসুস, সুইস জার্মান চিকিৎসক, উদ্ভিদবিদ ও জ্যোতিষী।
১৭৪৩ – কার্ল পিটার থাউনবেরগ, সুইডিশ উদ্ভিদবিদ, পতঙ্গবিশারদ ও মনোবৈজ্ঞানিক।
১৭৭১ – আধুনিক কোষতত্ত্বের জনক মারি ফ্রাঁসোয়া বিশা জন্ম গ্রহণ করেন।
১৮২১ – ফিওদোর দস্তয়েভ্‌স্কি, তিনি ছিলেন বিখ্যাত রুশ সাহিত্যিক।
১৮৬৪ – আলফ্রেড হারমান ফ্রিয়েড, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী অস্ট্রিয়ান সাংবাদিক ও সমাজ কর্মী।
১৮৭২ – সঙ্গীতজ্ঞ আবুল করিম খান সাহেব সঙ্গীতরত্ন।
১৮৮৫ – ইংরেজ সাহিত্যিক ডি.এইচ লরেন্স।
১৮৮৮ – মাওলানা আবুল কালাম আজাদ, তিনি ছিলেন ভারতীয় স্বাধীনতা আন্দোলনের নেতা ও ভারতের প্রথম শিক্ষামন্ত্রী।
১৯০১ – সোভিয়েত লেখক আলেকসান্দার ফাদায়েভ।
১৯০৭ – কবি সুফী মোতাহার হোসেন।
১৯০৮ – কথাসাহিত্যিক গজেন্দ্র কুমার মিত্র।
১৯১৪ – হাওয়ার্ড ফাস্ট, তিনি ছিলেন আমেরিকান লেখক ও চিত্রনাট্যকার।
১৯২৮ – হুমায়ূন রশীদ চৌধুরী, তিনি ছিলেন বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের স্পীকার ও কূটনীতিবিদ।
১৯২৮ – মেক্সিকান ঔপন্যাসিক কার্লোস ফুয়েন্তেস।
১৯৩৯ – আব্দেল মাজিদ লাখাল, তিনি ছিলেন তিউনিশিয়ার অভিনেতা ও পরিচালক।
১৯৬৪ – অ্যালিসন ডোডয়, তিনি ছিলেন আইরিশ মডেল ও অভিনেত্রী।
১৯৭৪ – লিওনার্ডো ডিক্যাপ্রিও, তিনি ছিলেন আমেরিকান অভিনেতা ও প্রযোজক।
১৯৭৭ – মানিশ, তিনি সাবেক পর্তুগালের ফুটবলার ও ম্যানেজার।
১৯৮৩ – ফিলিপ লাম, তিনি জার্মান ফুটবলার।
১৯৯০ – জরজিনিও ওয়িজনাল্ডুম, তিনি ডাচ ফুটবলার।

মৃত্যু:

১০২৮ – কনস্ট্যান্টিন অষ্টম, তিনি ছিলেন বাইজেন্টাইন সম্রাট।
১৮২৩ – অর্থনীতিবিদ ডেভিট রিকার্ডো।
১৯৪৮ – পাকিস্তানের প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ।
১৮৫৫ – সারেন কিয়েরকেগর, তিনি ছিলেন ডেনীয় দার্শনিক ও তাত্ত্বিক।
১৯১৯ – পাভেল খিস্ট্যাকভ, তিনি ছিলেন রাশিয়ান চিত্রশিল্পী ও শিক্ষক।
১৯২৩ – সমাজসেবক রাজনীতিক লেখক আশ্বিনীকুমার দত্ত।
১৯৭১ – সোভিয়েত রাষ্ট্রনায়ক নিকিতা ক্রুশ্চেভ।
১৯৭৩ – আর্টটুরি ইলমারি ভিরটানেন, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী ফিনিশ রসায়নবিদ ও একাডেমিক।
১৯৮৭ – প্রগতিবাদী রাজনৈতিক নেত্রী মণিকুন্তলা সেন।
১৯৯৯ – মোহাম্মদউল্লাহ, তিনি ছিলেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি ছিলেন।
২০০৫ – পিটার ড্রুকের, অস্ট্রিয়ান বংশোদ্ভূত আমেরিকান লেখক, তাত্তিক ও শিক্ষাবিদ।
২০০৪ – ইয়াসির আরাফাত, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী ফিলিস্তিন ইঞ্জিনিয়ার, রাজনীতিবিদ, ফিলিস্তিন জাতীয় কর্তৃপক্ষের ১ম প্রেসিডেন্ট।

এম এস, ১১ নভেম্বর

Back to top button