জাতীয়

১০ মাসে পানিতে ডুবে ১২৪৯ মৃত্যু, ৮৪ শতাংশ শিশু

ঢাকা, ১০ নভেম্বর – ২০২১ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত ১০ মাসে দেশে ৯১৭টি ঘটনায় এক হাজার ২৪৯ জন পানিতে ডুবে মারা গেছেন। এর মধ্যে এক হাজার ১২২ জন পানিতে ডুবে এবং ১২৭ জন নৌযান দুর্ঘটনায় ডুবে বা আহত হয়ে মারা যায়। মৃতদের ৮৪ শতাংশের বয়স ১৮ বছরের কম। এর মধ্যে ৪ বছর বা এর কম বয়সী ৫৩৮ জন। ৫ থেকে ৯ বছরের ৩৬৪ জন, ১০ থেকে ১৪ বছরের ১০৩ জন এবং ১৫ থেকে ১৮ বছরের ৩৯ জন। ২০৫ জনের বয়স ছিল ১৮ বছরের বেশি। সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনা চট্টগ্রাম বিভাগে, ৩১৬ জন।

মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) উন্নয়ন ও যোগাযোগবিষয়ক প্রতিষ্ঠান সমষ্টির প্রকাশিত এক গবেষণা প্রতিবেদন এ চিত্র উঠে আসে। সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ বিশ্লেষণ এবং তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করে সংস্থাটি। এতে সহযোগিতা করেছে গ্লোবাল হেলথ অ্যাডভোকেসি ইনকিউবেটর (জিএইচএআই)।

সমষ্টির বিশ্লেষণে দেখা যায়, গত ১০ মাসে নৌযান দুর্ঘটনা বাদে পানিতে ডুবে সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনা চট্টগ্রাম বিভাগের পর ঢাকায় ২৪০ জন, রাজশাহীতে ১৫৮, ময়মনসিংহে ১৩০, বরিশালে ১২৪, রংপুরে ১০৮ এবং খুলনা বিভাগে ১০৪ জন। এ সময়ে সবচেয়ে কম মৃত্যু ছিল সিলেট বিভাগে ৬৯ জন।

সমষ্টির সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পরিবারের সদস্যদের যথাযথ নজরদারি না থাকায় সবচেয়ে বেশিসংখ্যক পানিতে ডোবার ঘটনা ঘটে। পানিতে ডুবে ১২৪৯টি মৃত্যুর প্রায় ৯০ শতাংশ (১১৩১) ঘটে পরিবারের অন্য সদস্যদের অগোচরে। অধিকাংশ শিশু বড়দের অগোচরে বাড়িসংলগ্ন পুকুর বা অন্য জলাশয়ে গিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হয়। একই পরিবারের একাধিক সদস্য পানিতে ডুবে মারা যাওয়ার ঘটনাও আছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পানিতে ডুবে মৃত্যুর ঘটনাগুলোর জাতীয়ভাবে কার্যকর তথ্যায়ন ব্যবস্থা না থাকায় বেশির ভাগ ঘটনাই সংবাদমাধ্যমে উঠে আসে না। ফলে এ সংক্রান্ত পূর্ণাঙ্গ চিত্র পাওয়া যায় না। পানিতে ডুবে মৃত্যু নিয়ে জাতীয়ভাবে সর্বশেষ জরিপটি হয়েছে ২০১৬ সালে।

সূত্র : রাইজিংবিডি
এন এইচ, ১০ নভেম্বর

Back to top button