জাতীয়

এখন ভালো আছেন খালেদা জিয়া

ঢাকা, ০৭ নভেম্বর – বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এখন ভালো আছেন বলে জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। রোববার বিকেল ৫টা ৩৫ মিনিটে গুলশানে ফিরোজায় ভাড়া বাসায় পৌঁছান খালেদা জিয়া। এর আগে বিকেল ৫টায় হাসপাতাল থেকে বাসায় উদ্দেশ্যে রওনা দেন তিনি।

পরে মির্জা ফখরুল সাংবাদিকদেরকে বলেন, এখন তিনি (খালেদা জিয়া) ভালো আছেন। তার জন্য দোয়া করায় আপনাদের সকলকে উনি ধন্যবাদ জানিয়েছেন। আপনাদের মাধ্যমে আমি আবারও সকল দেশবাসীর কাছে বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষ থেকে তার জন্য দোয়া করার আহ্বান জানাচ্ছি।

খালেদা জিয়া গত এপ্রিল মাসে করোনায় আক্রান্ত হয়ে এভার কেয়ার হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন উল্লেখ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, সেখানে প্রায় ৫৬ দিন তার চিকিৎসা শেষে তিনি বাসা এসেছিলেন। এরপরে করোনাসহ বিভিন্ন কারণে প্রায় ৬ মাস যাবৎ তার ফলোআপ করা সম্ভব হয়নি। পরবর্তীতে গত ১২ অক্টোবর পরীক্ষা করানোর জন্য তিনি আবার এভার কেয়ার হাসপাতালে যান। সেখানে তার বিভিন্ন পরীক্ষা ও চিকিৎসা শেষে প্রায় ২৭ দিন পর তিনি আজ বাসায় ফিরে এসেছেন। আমরা পরম করুনাময় আল্লাহর কাছে শুকরিয়া আদায় করছি।

খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার প্রসঙ্গে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন বলেন, করোনায় দ্বিতীয় ঢেউ যখন শুরু হলো তখন চিকিৎসকদের পরামর্শ ছিলো, উনার সুচিকিৎসা জন্য এবং পরবর্তী ফলোআপের জন্য বিদেশে নিয়ে যায়া। কিন্তু আপনারা দেখেছেন, সেই সুযোগ হয়নি। যদিও উনার আত্মীয়-স্বজনেরা আবেদন করেছিলেন, তবে সেটা পরবর্তীতে বাস্তবায়নের মুখ দেখেনি।

‘এবার যখন প্রায় ৬ সপ্তাহ ধরে হালকা হালকা করে জ্বর আসছিলো, সেই পরিপ্রেক্ষিতে চিকিৎসকরা এবং মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা পরীক্ষার জন্য আবারও এভার কেয়ার হাসপাতালে নিয়ে যান। হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসকরা অনুভব করেন, উনার আরো পরীক্ষা-নিরীক্ষা প্রয়োজন। সেই অনুযায়ী তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা হয়। পরবর্তীতে আজ উনি আবার বাসায় এসেছেন।’

জাহিদ হোসেন বলেন, এবার এভারকেয়ার হাসপাতালে মেডিকেল বোর্ডের চিকিৎসকরা উনার (খালেদা জিয়া) সুচিকিৎসার জন্য ফার্দার ম্যানেজমেন্ট, ফার্দার ফলোআপ এবং পরবর্তী চিকিৎসা একটি মাল্টি ডিসিপ্লিনারি ডেভেলপ সেন্টারে দেশের বাহিরে যেকোন ভালো কান্ট্রিতে গিয়ে নিতে বলেছেন। উনিও (খালেদা জিয়া) বিশ্বাস করেন উনার সুচিকিৎসা প্রয়োজন। সেজন্য উনি আপনাদের মাধ্যমে দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন। যাতে সুচিকিৎসার মাধ্যমে উনি আবারও আপনাদের মাঝে ফেরত আসতে পারেন।

খালেদা জিয়া আগে থেকেই বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত ছিলেন এবং এখনও আছেন জানিয়ে ডা. জাহিদ বলেন, উনি যখন জেলখানা ছিলেন তখন সরকারের পক্ষ থেকে কোন চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়নি। এই অবস্থা উনার সুচিকিৎসা অত্যন্ত জরুরি। তাই দেশের বাইরে মাল্টি ডিসিপ্লিনারি অ্যাডভান্স ডেভেলপ সেন্টারে করার জন্য শুধু এভার কেয়ার হাসপাতালের চিকিৎসক নয়, মেডিকেল বোর্ডও উনাকে পরামর্শ দিয়েছেন, দেশের বাইরে উনার পরবর্তী চিকিৎসা নেয়ার জন্য।

গত ১২ অক্টোবর খালেদা জিয়াকে রাজধানীর এভার কেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে ২৫ অক্টোবর তার শরীর থেকে নেয়া টিস্যুর বায়োপসি করা হয়।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এম এস, ০৭ নভেম্বর

Back to top button