ইউরোপ

যাত্রীদের পালানোর চেষ্টা, ৪ ঘণ্টা বন্ধ স্পেনের বিমানবন্দর

মাদ্রিদ, ০৭ নভেম্বর – উড়ন্ত বিমানে অসুস্থ হয়ে যান এক যাত্রী। ওই যাত্রীর চিকিৎসার জন্য একটি ব্যস্ত বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণ করে বিমানটি। সেই সুযোগে ওই বিমানের ২১ জন যাত্রী নেমে দৌঁড়ে পালিয়ে যান। এ সময় ব্যস্ত ওই বিমানবন্দরের কার্যক্রম অন্তত চার ঘণ্টা বন্ধ থাকে।প্রায় ৬০টি ফ্লাইটের যাত্রা বিলম্বিত হয় বলে শনিবার বিবিসির প্রতিবেদনে জানা গেছে।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শুক্রবার স্পেনের পালামা দে মায়োরকা বিমানবন্দরে এ ঘটনা ঘটে। এয়ার আরাবিয়ার বিমানটি মরক্কোর কাসাব্লাঙ্কা থেকে তুরস্কের ইস্তাম্বুলে যাচ্ছিল। পথে মরক্কোর এক ব্যক্তি ডায়াবেটিক কোমায় পড়ে অসুস্থ হয়ে যাওয়ায় পালামা দে মায়োরকা বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণ করা হয়।

বিমানটিতে স্পেনের জরুরি বিভাগের কর্মীরা উঠে অসুস্থ যাত্রীকে নামানোর সময় বিমানটি থেকে ২১ যাত্রী দৌড়ে সিঁড়ি দিয়ে নেমে পালিয়ে যায়। প্রথমে তারা বিমানবন্দরে দাঁড় করিয়ে রাখা বিমানগুলোর নিচে লুকিয়ে থাকেন। এরপর দৌড়ে রানওয়ে পেরিয়ে বিমানবন্দরটির বেড়ার ওপর দিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন।

পালিয়ে যাওয়া যাত্রীরা অভিবাসন প্রত্যাশী বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ওই যাত্রীদের বিমান থেকে পালিয়ে যাওয়ার ঘটনা তাৎক্ষণিকভাবে ঘটেছে না অভিবাসন প্রত্যাশীদের অবৈধভাবে স্পেনে ঢোকানোর পূর্ব পরিকল্পনা থেকে এই ঘটানো হয়েছে তা তদন্ত করে দেখছে পুলিশ।

পরে বেশ কয়েকজনকে পুলিশ গ্রেফতার করলেও ১২ জন পালিয়ে আছেন বলে জানা গেছে।

এদিকে, হাসপাতালে স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর অসুস্থ হয়ে পড়া ওই বিমানযাত্রীকে শারীরিকভাবে সুস্থ ও ভালো অবস্থায় পাওয়া যায়। পরে তাকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়। তবে অবৈধভাবে স্পেনে প্রবেশের দায়ে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছে।

স্পেনের কোনো বিমানবন্দরের জন্য এ ঘটনা নজিরবিহীন বলে জানিয়েছেন দেশটির বালেয়ারিক দ্বীপপুঞ্জের শীর্ষ সরকারি কর্মকর্তা আইনা কালভো।

সূত্র: যুগান্তর
এম ইউ/০৭ নভেম্বর ২০২১

Back to top button