ফুটবল

কষ্টের জয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে রিয়াল

মাদ্রিদ, ০৭ নভেম্বর – রিয়াল মাদ্রিদ দুই গোল করেও নিশ্চিন্ত থাকতে পারেনি। শেষের দিকে আক্রমণের ঢেউ তুলে তাদের চোখ রাঙিয়েছে রায়ো ভায়েকানো। তাতে ২-১ গোলের কষ্টার্জিত জয়ে মাঠ ছেড়েছে লস ব্লাঙ্কোস।

এই জয়ে লা লিগায় শীর্ষে উঠেছে রিয়াল। ১২ ম্যাচে তাদের সংগ্রহ ২৭। সোসিয়েদাদ সমান ম্যাচে ২৫ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দুইয়ে রয়েছে।

চ্যাম্পিয়নস লিগে শাখতার দোনেৎস্ককে হারানো ম্যাচ থেকে দুটি পরিবর্তন আনতে বাধ্য হন কোচ আনচেলত্তি। লুকা মদ্রিচ ও লুকাস ভেসকেসের বদলে আসেন এদুয়ার্দো কামাভিঙ্গা ও মার্কো আসেনসিও।

রিয়ালের পথে শুরুতেই প্রতিবন্ধকতা তৈরি করে ‘ভার’। ভিনিসিয়ুস জাল কাঁপালে অফসাইডের ফাঁদে বাতিল হয়ে যায় তা। ১৪ মিনিটে আর কোন সমস্যা হয়নি। দলকে এগিয়ে নেন টনি ক্রুস। তবে এই গোলে অফসাইডের পতাকা উঠলে তার বৈধতা মিলেছে এই ‘ভার’ সিদ্ধান্তেই।

এর পর ম্যাচের নিয়ন্ত্রণেই থেকেছে রিয়াল। তাতে ২-০ করতেও সময় লাগেনি। ৩৮ মিনিটে আলাবার ক্রসে জাল কাঁপিয়েছেন করিম বেনজিমা। এর পর আরেকটি গোলেরও সুযোগ পেয়েছিলেন ফরাসি স্ট্রাইকার। কিন্তু রিবাউন্ড করে আসা বল ক্রসবারের ওপর দিয়ে মেরে বসেন তিনি।

চাপ বেড়ে যাওয়া পরিস্থিতিতে জ্বলে উঠার অপেক্ষায় ছিল রায়ো ভায়েকানো। তাতে রসদ জোগাতে বেঞ্চ থেকে ডাক পান রাদামেল ফ্যালকাও। তবে গোলের প্রথম সুযোগটি তৈরি করেছিলেন ফরোয়ার্ড বেবে। কুর্তোয়াকে পরাস্ত করে শট নিলে সেটি গিয়ে লাগে পোস্টে।

ফ্যালকাওর উপস্থিতি যে প্রভাব ফেলে এর প্রমাণ মেলে কিছুক্ষণ পর। আলভারো গার্সিয়ার ভাসানো ক্রস থেকে হেড করে জাল কাঁপান কলম্বিয়ান তারকা। তাতে স্কোর হয়ে যায় ২-১। গোলের পর অবশ্য ইনজুরি নিয়ে মাঠ ছেড়ে যান তিনি। রায়ো ভায়েকানো এর পরেও সমতা ফেরানোর সুযোগ পেয়েছিল। গোলমুখে অস্কার ভেলেন্টিন শট নিয়েছিলেন, কিন্তু গোললাইন থেকে সেটি কোনমতে রক্ষা করেন ক্রুস। রিয়ালের এমন পরিস্থিতি হতো না, যদি আগের সুযোগগুলো কাজে লাগানো যেত!

এদিকে লিগ ওয়ানেও কষ্টের জয় পেয়েছে পিএসজি। বোর্দোকে তারা হারিয়েছে ৩-২ গোলে। মেসিহীন পিএসজির হয়ে দুটি গোল করেছেন নেইমার। আরেকটি এমবাপ্পে।

পিএসজির ২৬, ৪৩ ও ৬৩ মিনিটের গোলের পর শেষ দিকে ম্যাচে ফেরার দৃশ্যপট তৈরি করে বোর্দো। ৭৮ মিনিটে এলিস ও যোগ করা সময়ে (৯০+২) জাল কাঁপান নিয়াং।

সূত্রঃ বাংলা ট্রিবিউন

আর আই

Back to top button