ক্রিকেট

ধন্যবাদ বিনোদনের ফেরিওয়ালা

আবুধাবি, ০৭ নভেম্বর – বিপিএলের দ্বিতীয় আসরের একটা ঘটনা। ২০১৩ সালের বিপিএলে মাত্র এক ম্যাচ খেলার জন্যে গেইলকে উড়িয়ে আনে ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস। পারিশ্রমিক ৩৫ হাজার ডলার। সেবার তাদের প্রতিপক্ষ ছিল সিলেট রয়্যালস।

ঢাকায় নেমে টিম হোটেলে গিয়ে ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরসের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাকে গেইল জিজ্ঞেস করেন, ‘গাজী (সোহাগ) কি আমাদের বিপক্ষে খেলবে?’ মাশরাফিও উত্তর দিয়েছিলেন, ‘আছে। তুমি ওকে নিয়ে চিন্তা কর না। ওর জন্যে অন্য ট্রিটমেন্ট আছে।’

আগের রাতে ঢাকায় নেমে পরদিন ম্যাচে সোহাগ গাজীর বল খেলতে একটু ‘ঝামেলা’ হয়েছিল গেইলের। আগে ব্যাটিং করতে নেমে ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস শুরুতেই দুই উইকেট হারিয়ে ফেলে। এ সময়ে সোহাগ গাজীর চার বল খেলে রান শূন্য ছিলেন গেইল। সাকিব আল হাসান ক্রিজে গিয়ে মাঠ মাতিয়ে দেন। ক্রিজে গিয়েই গেইলকে বলেন, ‘আমি গাজীকে দেখছি। তুমি ও প্রান্তে বসে বসে দেখ।’

সাকিব ঠিকই কথা রাখলেন। গাজীর করা ১২ বল খেলে ২৭ রান নিয়ে নেন। ছিল চারটি ছয় ও একটি চারের মার। আরেকপ্রান্তে গেইল শুধু দর্শক। সে ম্যাচে গাজীর করা পাঁচ বলে গেইল নেন মাত্র এক রান। কিন্তু পরে কি করেছিলেন মনে আছে? ৫১ বলে ১২ ছক্কা ও ৫ চারে করেছিলেন ১১৪ রান। তাতে ম্যাচটা নিজের করে নেন গেইল। ঠিক এভাবেই সারা বিশ্বে টি-টোয়েন্টি ফেরি করে বেড়িয়েছেন ক্রিস গেইল। আর বিনোদন দিয়েছেন গোটা বিশ্বকে।

গেইলের জীবনাদর্শ বেশ পরিস্কার। নিজের মতো করে প্রতিটি সেকেন্ড, প্রতিটি মিনিট উপভোগ করো। গেইল মাঠে সবাইকে বিনোদন দিতে চান, মাঠের বাইরে বিনোদন নিতে চান জীবন থেকে। উপভোগ করতে চান প্রতিটি মুহূর্ত। তার এই ক্রিকেট-দর্শন আর জীবনদর্শনের সঙ্গে দারুণভাবে খাপ খেয়ে যায় টি-টোয়েন্টির দর্শন। সব মিলিয়েই গেইল হয়ে উঠেছেন তাই টি-টোয়েন্টির সবচেয়ে বড় বিজ্ঞাপন। ক্রিস গেইল আর টি-টোয়েন্টি—দুটোই বিনোদনের ভরপুর প্যাকেজ!

শনিবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচ খেললেন গেইল। আরেকটি বিশ্বকাপ খেলার ইচ্ছা আছে তার। কিন্তু সুযোগ হবে না জানেন। তাই নিজের শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচটা মজায় মজায় কাটালেন। সানগ্লাস পরে নেমেছিলেন ব্যাটিংয়ে। ৯ বলে ২ ছক্কায় করেন ১৫ রান। এরপর বোলিংয়ে এসেছিলেন শেষ দিকে যখন অস্ট্রেলিয়ার ৩০ বলে লাগত ৮ রান। ওভারের শেষ বলে শন মার্শের উইকেটও পেয়েছেন। উইকেট উল্লাস করতে গিয়ে মার্শকে জড়িয়ে ধরেন।

ম্যাচ শেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটাররা গেইল ও অবসরের ঘোষণা দেওয়া ডোয়াইন ব্রাভোকে গার্ড অব অনার দেয়। তাহলে কি গেইলও বিদায় বললেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে? না। গেইল অবসরের ঘোষণা দেননি। তবে এটি তার বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচ। গেইল বলেছেন,‘এটা আমার বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচ। আমি অবশ্য আরেকটি বিশ্বকাপ খেলতে চাই। কিন্তু আমার মনে হয় না সেই সুযোগটি আমি পাবো। আমি জ্যামাইকায় ক্যারিয়ারের শেষ ম্যাচটা খেলতে চাই।’

গেইলের ব্যাটে এবার নেই রানের ফোয়ারা। ৪২ পেরানো এই ব্যাটসম্যান ৫ ম্যাচে মাত্র ৪৫ রান করেছেন। বিশ্বকাপের এমন পারফরম্যান্সের পর আরেকবার সুযোগ পাবেন কিনা সময় বলে দেবে। তবে ক্রিকেটের ২২ গজ, সবুজ গালিজা, জীবন যেভাবে রাঙিয়ে দিয়েছেন তাতে একটি ধন্যবাদ তো প্রাপ্যই।

ধন্যবাদ বিনোদনের ফেরিওয়ালা।

সূত্র : রাইজিংবিডি
এন এইচ, ০৭ নভেম্বর

Back to top button