এশিয়া

তাইওয়ানের স্বাধীনতায় সমর্থনকারীদের কঠিন শাস্তির হুঁশিয়ারি চীনের

বেইজিং, ০৬ নভেম্বর- তাইওয়ানের স্বাধীনতায় সমর্থনকারীদের কঠোর শাস্তির আওতায় আনার হুঁশিয়ারি দিয়েছে চীন। স্থানীয় সময় শুক্রবার (৫ নভেম্বর) তাইওয়ানবিষয়ক কার্যালয়ের এক মুখপাত্র এ হুঁশিয়ারি দেন। তাইওয়ানের সমর্থকদের আজীবনের জন্য এই অপরাধের সাজা পেতে হবে বলেও জানান তিনি।

চীন ও তাইওয়ানের মধ্যে চরম উত্তেজনার মাঝে চীন প্রথমবারের মতো এমন শাস্তির কথা জানালো। তাইওয়ান দীর্ঘদিন ধরেই নিজেদের স্বতন্ত্র বলে দাবি করে আসছে। যদিও চীন তা অস্বীকার করে ক্রমাগত আধিপত্য বিস্তারের চেষ্টা চালাচ্ছে বলে বারবার অভিযোগ করছেন তাইওয়ানের নেতারা।

চীনের তাইওয়ানবিষয়ক কার্যালয়ের প্রধান সু সেং-চ্যাং,পার্লামেন্টের স্পিকার ইউ সি-কুন এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী জোসেফ উ তাইওয়ানের স্বাধীনতার পক্ষ নেওয়াকে ‘একগুঁয়ে’ বলে উল্লেখ করেছেন। তাইওয়ানের স্বাধীনতার সমর্থনকারীদের তালিকা করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ উঠেছে।

মুখপাত্র ঝু ফেংলিয়ান শুক্রবার এক বিবৃতিতে বলেন, তাইওয়ানের স্বাধীনতায় সমর্থনকারীরা মূল ভূ-খন্ডে এমনকি প্রশাসনিক অঞ্চল হংকং ও ম্যাকাউয়ে প্রবেশ করতে পারবে না।

ঝু আরও বলেন, চীন তাইওয়ানের স্বাধীনতার সমর্থকদের বার্তা দিতে চায় যে, যারা তাদের পূর্বপুরুষদের ভুলে যায়, মাতৃভূমির সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করে এবং দেশকে বিভক্ত করে, তাদের কখনই ভালো হবে না, তারা জনগণের দ্বারা প্রত্যাখ্যাত হবে এবং ইতিহাস তাদের বিচার করবে।

গত ৯ অক্টোবর তাইওয়ানকে পুনরায় একত্র করার ঘোষণা দেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। এর পাল্টা হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট তাসাই ইন-ওয়েন। জাতীয় দিবসে (১০ অক্টোবর) বেইজিংকে কড়া হুঁশিয়ারি দিয়ে প্রেসিডেন্ট তাসাই ইন-ওয়েন বলেন, তাইওয়ান কখনও চীনের কাছে মাথা নত করবে না।

বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, বেইজিং ধারাবাহিকভাবে তাইওয়ানকে রাজনৈতিক ও সামরিক চাপের মুখে ফেলেছে। প্রতিনিয়ত তাইওয়ানের আকাশে চীনা যুদ্ধবিমান টহল দিচ্ছে। অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহেই তাইওয়ানের আকাশসীমায় টহল দিয়েছে বেইজিংয়ের ১৪৯টি সামরিক বিমান।

সূত্রঃ জাগো নিউজ

আর আই

Back to top button