অস্ট্রেলিয়া

৬০০ দিন পর বিশ্বের জন্য দুয়ার খুলল অস্ট্রেলিয়া

ক্য়ানবেরা, ০১ নভেম্বর – প্রায় ৬০০ দিন ধরে সীমান্ত বন্ধ থাকার পর অস্ট্রেলিয়া আজ সোমবার সকালে কোয়ারেন্টিন ছাড়াই আন্তর্জাতিক ফ্লাইটগুলোকে স্বাগত জানিয়েছে। জানা গেছে, সিঙ্গাপুর থেকে একটি বিমান সিডনির কিংসফোর্ড স্মিথ ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে ভোর সাড়ে ৫টার আগে পৌঁছে। এরপর যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেস থেকে আসা কান্তাস এয়ারলাইনসে অবতরণ করে।

এদিকে বিদেশে বসবাসকারী কয়েক হাজার অস্ট্রেলিয়ান নাগরিক ১৯ মাস ধরে তাদের দেশে ফিরতে পারেননি। আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালুর পর তারাও দেশে ফেরা শুরু করেছেন। ফলে বিমানবন্দরে এক আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হচ্ছে।

জানা গেছে, আজ সোমবার সীমান্ত খুলে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। এর আগে প্রায় ৬০০ দিন ধরে সীমান্ত বন্ধ ছিল করোনাভাইরাস মহামারির জন্য। করোনা সংক্রমণ থেকে বাঁচতে ২০২০ সালের ২০ মার্চ সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল।

সীমান্ত বন্ধ থাকার ফলে ১৯ মাস ধরে হাজার হাজার অস্ট্রেলিয়ান নাগরিক বিদেশে আটকে ছিলেন। এর আগে ফ্লাইট দুষ্প্রাপ্য ছিল এবং যাদের ফিরে আসার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল, তাদের ১৪ দিনের হোটেল কোয়ারেন্টিনে থাকার কথা বলা হচ্ছিল। যা অত্যন্ত ব্যয়বহুল।

তবে সে দেশের সিডনি এবং মেলবোর্ন সিদ্ধান্ত নেয় যে সেই সিদ্ধান্ত তারা তুলে দেবে এবং টিকা নেওয়া ব্যক্তিরা কোয়ারেন্টিন ছাড়াই সেখানে যেতে পারবেন।

আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালুর বিষয়টিকে স্বাগত জানিয়েছে অস্ট্রেলিয়ান এয়ারলাইনস কান্তাস। কান্তাসের প্রধান নির্বাহী অ্যালান জয়সে বলেছেন, দীর্ঘ সময় ধরে আলাদা থাকার পর অস্ট্রেলিয়ানরা তাদের প্রিয়জনের সঙ্গে আবারও মিলিত হতে পারছে দেখে খুবই ভালো লাগছে।

সূত্রঃ কালের কণ্ঠ

আর আই

Back to top button