শরীয়তপুর

শরীয়তপুরে ১০ বিদ্রোহী প্রার্থীকে বহিষ্কার করল আ.লীগ

শরীয়তপুর, ৩১ অক্টোবর – শরীয়তপুর সদর উপজেলার সাত ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে ইউপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করায় দলটির ১০ নেতাকে বহিষ্কার করা হয়েছে। আজ শনিবার রাত ৮টায় জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে এক সভায় তাদের লিখিতভাবে বহিষ্কার করা হয়। জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অনল কুমার দে এ বহিষ্কার আদেশ ঘোষণা করেন।

বহিষ্কৃতরা হলেন- সদর উপজেলার রুদ্রকর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও বর্তমান চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান ঢালী, তুলাসার ইউনিয়নে উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য জাহিদুল ইসলাম ফকির, মাহমুদপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য বর্তমান চেয়ারম্যান শাহজাহান ঢালী, আওয়ামী লীগের সাধারণ সদস্য শাহিন তালুকদার, তার স্ত্রী সদর উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইরানি বেগম, ডোমসার আওয়ামী লীগের সাধারণ সদস্য মাস্টার মজিবুর রহমান খান, শৌলপাড়া ইউনিয়নে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আব্দুল মান্নান খান ভাষানী, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি এসকেন্দার সরদার, পালং ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের সাধারণ সদস্য আজাহার খান ও আংগারিয়া ইউনিয়ন জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আনোয়ার হোসেন হাওলাদার।

এ ব্যাপারে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গের দায়ে তাদের দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। আগামীকাল রোববার তাদের চিঠি দিয়ে এ বিষয়ে সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দেওয়া হবে।

জানা গেছে, দ্বিতীয় দফা ইউপি নির্বাচনে সদর উপজেলার ১০ ইউপিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পেয়েছেন বিনোদপুর ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল হামিদ সাকিদার, চন্দ্রপুর ইউনিয়নে আব্দুস সালাম খান, চিতলিয়া ইউনিয়নে হারুন-অর-রশিদ, আংগারিয়া ইউনিয়নে আসমা আক্তার, ডোমসার ইউনিয়নে মিজান মোহাম্মদ খান, পালং ইউনিয়নে আবুল হোসেন দেওয়ান, তুলাসার ইউনিয়নে জামাল হোসাইন, রুদ্রকর ইউনিয়নে সিরাজুল ইসলাম, শৌলপাড়া ইউনিয়নে মো. আলমগীর হোসেন খান ও মাহমুদপুর ইউনিয়নে লিয়াকত হোসেন হান্নান তালুকদার।

এ ছাড়া বিনোদপুর, চিতলিয়া ও মাহমুদপুর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের (নৌকা) প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। যারা বিদ্রোহী প্রার্থী ছিল তারা ২৬ অক্টোবর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনেও তা প্রত্যাহার না করায় কেন্দ্রীয় নির্দেশনা অনুযায়ী ওই নেতাদের বহিষ্কার করে উপজেলা আওয়ামী লীগ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল হাসেম তপাদার, সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান উজ্জ্বল, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাড. জাহাঙ্গীর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নুহুন মাদবর, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ফাহাদ হোসেন তপু প্রমুখ।

সূত্র : আমাদের সময়
এন এইচ, ৩১ অক্টোবর

Back to top button