ইসলাম

ঘুমে শয়তানের চক্রান্ত থেকে বাঁচার আমল

প্রিয় নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের একটি হাদিস থেকে প্রমাণিত যে শয়তান মানুষের অমঙ্গলে নিয়োজিত। মানুষ যখন ঘুমাতে যায় তখন শয়তান মানুষের মাথার পেছনে ৩টি গিঁট দেয়। যাতে সে সময় মতো তাহাজ্জুদ কিংবা ফজর নামাজের জন্য উঠতে না পারে। শয়তানের গিঁট দেওয়ার চক্রান্ত থেকে মুক্তি পেতে ৩টি আমলের কথা বলেছেন স্বয়ং বিশ্বনবি। কী সেই আমল তিনটি?

হজরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করছেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘তোমাদের কেউ ঘুমাতে গেলে, তার মাথার পেছন দিকে শয়তান ৩টি গিঁট দেয়। গিঁট দেওয়ার প্রত্যেক গিঁটে সে চাপড় দিয়ে বলে, তোমার সামনে দীর্ঘ রাত পড়ে আছে; সুতরাং তুমি আরামে ঘুম দাও!’ (তাই এ গিঁট থেকে বাঁচতে করণীয়)-

> মানুষ যখন ঘুম থেকে জেগে আল্লাহকে স্মরণ করে; তখন একটি গিঁট খুলে যায়;

> সে যদি অজু করে; তাতে (আরও) একটি গিঁট খুলে যায়;

> এরর নামাজ আদায় কলে (তৃতীয়) গিঁট খুলে যায়।;

এর ফলে…

তার (ওই ব্যক্তির) সকাল অতিবাহিত হয় প্রাণবন্ত প্রশান্তি ও প্রফুল্ল অবস্থায়। অন্যথায় তার সকাল হয় নোংরা মন ও অলস অবস্থায়।’ (বুখারি, মুসলিম, মুসনাদে আহমাদ)

সুতরাং ঘুমাতে গেলে এ দোয়া পড়া-

بِاسْمِكَ رَبِّي وَضَعْتُ جَنْبِي وَبِكَ أَرْفَعُهُ فَإِنْ أَمْسَكْتَ نَفْسِي فَارْحَمْهَا وَإِنْ أَرْسَلْتَهَا فَاحْفَظْهَا بِمَا تَحْفَظُ بِهِ عِبَادَكَ الصَّالِحِينَ

উচ্চারণ : ‌বিসমিকা রাব্বি ওয়াদাতু ঝাম্বি ওয়াবিকা আরফাউহু ফাইন আমসাকতা নাফসি ফারহামহা ওয়া ইন আরসালতাহা ফাহফাজহা বিমা তাহফাজ বিহি ইবাদাকাস সালিহিনা।’

অর্থ : ‘হে আমার প্রতিপালক! তোমার নামে বিছানায় শয়ন করলাম এবং আবার তোমার নামেই জেগে ওঠবো। যদি তুমি আমার জান (জীবন) রেখে দাও তবে তার প্রতি দয়া কর, আর যদি তাকে ছেড়ে দাও (মৃত্যু দান কর) তবে তা সেভাবে প্রতিরক্ষা কর যেভাবে তুমি তোমার নেক বান্দাদের প্রতিরক্ষা কর।’

আবার রাতে কিংবা সকালে ঘুম থেকে উঠলে আল্লাহকে স্মরণ করা-

নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন ‘তোমাদের কেউ যখন ঘুম থেকে জেগে ওঠে, তখন সে যেন বলে-

الْحَمْدُ لِلَّهِ الَّذِي عَافَانِي فِي جَسَدِي وَرَدَّ عَلَىَّ رُوحِي وَأَذِنَ لِي بِذِكْرِهِ ‏

উচ্চারণ : ‌আলহামদুলিল্লাহিল্লাজি আফানি ফি ঝাসাদি ওয়া রাদ্দা আলাইয়্যা রুহি ওয়া আজিনা লি বিজিকরিহি।’

অর্থ : ‘সব প্রশংসা আল্লাহ তাআলার যিনি আমার দেহকে প্রশান্তি দিয়েছেন এবং আমার (দেহে) জান আবার আমাকে ফেরত দিয়েছেন এবং তাকে স্মরণ করারও অনুমতি (তাওফিক) দান করেছেন।’ (তিরমিজি)

হাদিসে উল্লেখিত ৩ আমলেই শয়তানের চক্রান্ত থেকে মুক্তি পাওয়া সহজ। তাই রাতে ঘুমাতে গেলে আল্লাহর উপর ভরসা করে দোয়া পড়ে ফজর কিংবা তাহাজ্জুদ পড়ার দৃঢ় সংকল্প করলেই মহান আল্লাহ তাআলা মানুষকে শয়তানের ক্ষতিকর গিঁট থেকে মুক্ত রাখবেন। অন্ততঃ হাদিসের উপর আমল করলেও শয়তানের যাবতীয় ক্ষতিকর দৃষ্টি ও গিঁট থেকে মুক্ত হওয়া সহজ।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে শয়তানের ক্ষতি থেকে বাঁচতে হাদিসের উপর যথাযথ আমল করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

এম ইউ

Back to top button