পশ্চিমবঙ্গ

এবার গোয়ায় নতুন ভোরের ডাক দিলেন মমতা

কলকাতা, ২৩ অক্টোবর – এবার ভিন রাজ্য জয়ের লক্ষ্য পশ্চিমবঙ্গের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের। আর সে লক্ষ্যে এবার গোয়া সফরে যাচ্ছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গোয়া রাজ্যে এবার নতুন ভোরের ডাক দিলেন মমতা। গোয়া সফরের আগে তাৎপর্যপূর্ণভাবে টুইট করলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আজ শনিবার সকালে করা টুইটে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপির বিভাজনের রাজনীতির বিরুদ্ধে গোয়ার মানুষকে একজোট হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। এদিন টুইট করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, আগামী ২৮ অক্টোবর তিনি প্রথম বারের জন্য গোয়ায় যাবেন। তিনি তাঁর আগে সব ব্যক্তি, সংগঠন এবং রাজনৈতিক দলকে বিজেপির বিভাজনের রাজনীতিকে পরাজিত করার আহ্বান জানান।

মুখ্যমন্ত্রী এদিন টুইটে বলেছেন, ‘১০ বছর ধরে মানুষ কষ্ট ভোগ করছে। সবাই একসঙ্গে মিলে নতুন সরকার গঠনের মাধ্যমে গোয়ায় নতুন ভোরের সূচনা করতে হবে। যে সরকার সত্যিকারের জনগণের সরকার হবে, জনগণের আকাঙ্খাগুলো বাস্তবায়নের জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হবে।’

পশ্চিমবঙ্গে জয়ের পরেই ত্রিপুরা ও গোয়ায় জয়ের টার্গেট নেয় তৃণমূল। তৃতীয়বারের জন্য পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতায় রয়েছে তৃণমূল। তারপরই ত্রিপুরা এবং গোয়ার মতো রাজ্য জয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে তৃণমূল। দুই রাজ্যেই বর্তমানে ক্ষমতায় রয়েছে বিজেপি। দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় আগেই বিজেপিকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, যেসব রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতায় আছে, সেসব রাজ্যে ক্ষমতা দখলের জন্য ঝাঁপিয়ে পড়বে তৃণমূল। তবে এখন পর্যন্ত ত্রিপুরা এবং গোয়ায় কংগ্রেসের সংগঠন ভাঙিয়েই তৃণমূল নিজেদের সংগঠনকে শক্তিশালী করেছে ও করছে।

ত্রিপুরার দায়িত্বপ্রাপ্ত নেত্রী সুম্মিতা দেব কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেওয়ার পরেই তাঁকে পশ্চিমবঙ্গ থেকে রাজ্যসভার সদস্য করে তৃণমূল।

অন্যদিকে, গত মাসে কলকাতায় গিয়ে তৃণমূলে যোগ দেন গোয়ার সাত বারের কংগ্রেস বিধায়ক এবং সাবেক মুখ্যমন্ত্রী লুইজিনো ফেলেইরো। ত্রিপুরায় কংগ্রেস প্রধান বিরোধী দল না হলেও গোয়ায় বিজেপির প্রধান বিরোধী শক্তি এখনও তারাই। গোয়ায় আগেকার বিধানসভা নির্বাচনে কংগ্রেস ১৭টি এবং বিজেপি ১৩টি আসন দখল করলেও শেষ পর্যন্ত কংগ্রেসকে টপকে গোয়ায় ক্ষমতা দখল করে বিজেপি।

এরই মধ্যে লুইজিনো ফেলেইরোকে তৃণমূলে জাতীয় সহসভাপতি করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। এর পরেই লুইজিনো ফেলেইরো তাঁর প্রতি বিশ্বাস রাখার জন্য দল এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে অভিনন্দন জানিয়েছেন। সেইসঙ্গে বিজেপির বিভাজনের রাজনীতির বিরুদ্ধে লড়াই করার অঙ্গীকার করেছেন তিনি।

২০২২ সালে গোয়ায় বিধানসভা নির্বাচন হতে চলেছে। বিজেপির বিরুদ্ধে কংগ্রেস ছাড়াও তৃণমূল এবং আম আদমি পার্টি আলাদাভাবে লড়াই করতে চলেছে।

সূত্র : এনটিভি
এম এস, ২৩ অক্টোবর

Back to top button