সাজ-সজ্জা

অল্প খরচে সাজিয়ে ফেলুন নিজের ঘরটি

ঘর শান্তির নীড়। সারাদিন কর্মব্যস্ততার পর ঘরে ফিরে মনটা প্রশান্তিতে ভরে যায়। তাই প্রত্যেক মানুষ চায় তার ঘরটি হোক সাজানো গোছানো ছিমছাম। এই ঘর সাজানোর জন্য কত কিছু না করতে ইচ্ছা করে, কিন্তু সব সময় সব কিছু করা হয়ে উঠে না। ইচ্ছা থাকলেও কিনতে পারা যায় না পছন্দের ঘর সাজানোর জিনিস। কিন্তু কিছু বুদ্ধি খাটিয়ে খুব কম খরচে এবং নতুন আঙ্গিকে ঘরকে সাজানো যায়। এর জন্য প্রয়োজন কিছু কৌশলের। আসুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক সেই কৌশলগুলো।

১। রঙের পরিবর্তন
আপনার ঘরকে আকর্ষনীয় করে তুলতে রঙের ভূমিকা অনেক। ঘরের আকার দেখে রং পছন্দ করুন। হালকা রং ঘরকে বড় দেখায়। আর গাঢ় রংয়ে ঘরকে ছোট দেখায়। যদি নতুন করে রং করা সম্ভব না হয় তবে আগের রং ওপর নতুন এক কোট রং লাগিয়ে নিন দেখবেন ঘরের উজ্জলতা বেড়ে গেছে।

২। কুশন ব্যবহার
ঘরকে সাজাতে কুশন ব্যবহার করতে পারেন। ঘরের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পায় রঙিন কুশন ব্যবহারের মাধ্যমে। আপনার সোফার রঙ খুব সাধারণ অনুজ্জ্বল হলেও তার সঙ্গে রঙিন কুশন মানিয়ে যাবে সহজেই। যে কোনো একটি উজ্জ্বল রঙের কুশন দিয়ে সোফা ও বিছানা ভরিয়ে তুলতে পারেন। আবার চার পাঁচটি রঙ এর কুশন কভারও ব্যবহার করতে পারেন।

৩। সঠিক সোফা নির্বাচন করুন
সোফা আপনার ঘরের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ। অনেক দামী কোন সোফা দিয়ে ঘর সজাতে হবে এমন কোন কথা নেই। আজকাল মেঝেতে বসার আয়োজন বা ফ্লোরিং বেশ জনপ্রিয়। ফ্লোরিং যদি পছন্দ না করেন তবে বাঁশ বা বেতের সোফা দিয়ে ঘর সাজাতে পারেন। অল্প খরচে অনেক সুন্দর কিছু বেতের সোফা কিনতে পারেন।

৪। গাছ ও ফুল
ফুল এবং গাছ অন্যান্য ঘর সাজানোর জিনিসের তুলনায় বেশ সস্তা। এই গাছ দিয়ে সাজিয়ে নিতে পারেন আপনার বাসাটি। গাছ ঘরকে রঙিন করে তুলবে। জানালার ধার ঘেঁষে লাগাতে পারেন লতানো গাছ। ঘরে পর্যাপ্ত আলো বাতাস না থাকলে গাছের বদলে তাজা ফুলও রাখতে পারেন। ঘরের এক কোণে কয়েকটি তাজা ফুল রেখে দিলে নিমিষেই ঘর উজ্জ্বল হয়ে ওঠে।

৫। রাস্তার পাশের দোকান থেকে কিনুন
সবসময় বড় দোকানগুলো থেকে যে শোপিস বা ঘর সাজানোর জিনিস কিনতে হবে এমন তো নয়। অনেক সময় রাস্তার পাশেও পেতে পারেন দারুন কিছু ঘর সাজানোর জিনিস। পথে আসা যাওয়ার সময় খেয়াল করুন রাস্তার দোকানগুলোকে। পেয়ে যেতে পারেন আপানার পছন্দের কোন শোপিস।

৬। ল্যাম্প
অল্প খরচে ঘরে আভিজাত্য ফুটিয়ে তুলতে চাইলে ল্যাম্পের জুড়ি নেই। ঘরের কোণে একটি রঙিন ল্যাম্প রেখে দিন। সেটা হতে পারে হলুদ, লাল, নীল, কমলা কিংবা সবুজ। অথবা বেশ কিছু রঙের মিশ্রনে তৈরী ল্যাম্প ও পাওয়া যায় বাজারে। এছাড়া ঝুলানোর জন্য বিশেষ কিছু ল্যাম্প পাওয়া যায়। এর যেকোন একটা ল্যাম্প আপনি ঘরের কোণে রেখে দিতে পারেন।

এম ইউ

Back to top button