অপরাধ

এএসপি পরিচয়ে ৪০ নারীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক, অতঃপর গ্রেপ্তার

ময়মনসিংহ, ১৩ অক্টোবর – ময়মনসিংহের ফুলপুরের এক তরুণীর সঙ্গে ফেসবুকে পরিচয় হয় সোলায়মান কবির নামে এক যুবকের। মেয়েটির কাছে নিজেকে পরিচয় দেন তিনি সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি)। বেশ কিছুদিন মেসেঞ্জারে চ্যাটিং আর মোবাইলে কথা বলায় বাড়ে সখ্যতাও। এরপর মেয়েটির বাড়িতে একাই যান বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে। তবে সেখানেই বাধে বিপত্তি। ভুয়া এএসপি প্রমাণিত হওয়ায় ধরা খেয়ে তিনি এখন কারাগারে।

গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে ময়মনসিংহের চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক দেওয়ান মনিরুজ্জামান প্রতারক সোলায়মান কবিরকে (৩৫) কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এর আগে, সোমবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে তরুণীর বাড়ি ফুলপুরের রূপসী এলাকা থেকে সোলায়মান কবিরকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতি উপজেলার কুচনিপাড়া এলাকার শাহজাহান মিয়ার ছেলে।

ফুলপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, শেরপুর সরকারি কলেজে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে অনার্স ফাইনাল ইয়ারে পড়ুয়া তরুণীর সঙ্গে পরিচয় হলে সোলায়মান নিজেকে ৪০তম বিসিএসের এএসপি হিসেবে পরিচয় দেয়। পরবর্তীতে তিনি মেয়েটিকে বিয়ের প্রস্তাব দিলে মেয়েটি তাকে বাবার বাড়িতে যেতে বলে। এরপর সোমবার রাতে তিনি একাই বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে ফুলপুরের রূপসী এলাকায় আসে। সোলায়মান মেয়ের বাবার সঙ্গে কথাবার্তা বললে তার কথায় সন্দেহ হলে আমাকে জানান।

তিনি আরও বলেন, প্রথমে মোবাইলে কথা বলে আমি নিশ্চিত হই যুবকটি প্রতারক। পরে পুলিশ ফোর্স পাঠিয়ে তাকে থানায় এনে আরও জিজ্ঞাসাবাদ করলে বেরিয়ে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। তিনি নিজেকে এএসপি পরিচয় দিয়ে কমপক্ষে ৩৫ থেকে ৪০ জন মেয়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক করেছে।

ওসি আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, ওই যুবকের নামে ফুলপুর থানায় প্রতারণা মামলা দায়ের করে পাঁচ দিনের রিমান্ড চেয়ে মঙ্গলবার তাকে আদালতে পাঠানো হয়। পরে বিচারক তাকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
এম ইউ/১৩ অক্টোবর ২০২১

Back to top button