দক্ষিণ এশিয়া

তালেবানের বিরুদ্ধে হাজারা সম্প্রদায়ের ১৩ জনকে হত্যার অভিযোগ

কাবুল, ০৫ অক্টোবর – আফগানিস্তানে ক্ষমতা গ্রহণের পর হাজারা জাতিগোষ্ঠীর ১৩ সদস্যকে হত্যা করেছে তালেবান। তাদের মধ্যে ১৭ বছরের এক কিশোরীও রয়েছে। দেশটির কেন্দ্রীয় প্রদেশ দয়াকুন্ডিতে এ ঘটনা ঘটেছে বলে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের এক নতুন প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, আগস্ট মাসের ৩০ তারিখ তালেবানের ৩০০ সদস্যের একটি বহর খিদির জেলায় প্রবেশ করে এবং আফগানিস্তানের জাতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর (এএনএসএফ) ১১ জন সাবেক সদস্যকে হত্যা করে। আত্মসমর্পণের পর তাদের মধ্যে নয়জনকে পার্শ্ববর্তী নদীর তীরে নিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছিল। মঙ্গলবার প্রকাশিত নতুন প্রতিবেদনে এ দাবি করে মানবাধিকার সংস্থাটি।

হত্যার শিকার আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর ওই সদস্যদের বয়স ছিল ২৬-৪৬ বছর এবং তারা সবাই হাজারা জাতিগোষ্ঠীর সদস্য। এ সময় আফগান বাহিনীকে লক্ষ্য করে ছোঁড়া গুলিতে মাসুমা নামেরে এক কিশোরীও ক্রসফায়ারে নিহত হন। নিহতদের মধ্যে আরেক বেসামরিক নাগরিক হলো ফায়েজ। তিনি ঘটনার কয়েক দিন আগে বিয়ে করেছিলেন।

অ্যামনেস্টির নতুন প্রতিবেদন অনুযায়ী, জাতিগোষ্ঠীটির ওপর তালেবানের এটি দ্বিতীয় হত্যাকাণ্ডের ঘটনা কারণ গত জুলাই মাসে গজনি প্রদেশে হাজারা গোষ্ঠীর নয়জনকে হত্যা করে তালেবান। কিন্তু তখন তারা ক্ষমতায় ছিল না।

১৯৯৬-২০০১ সালে যখন তালেবান ক্ষমতায় ছিল তখনও এ জনগোষ্ঠীর ওপর নির্যাতন চালানো হয়।

সূত্র: বাংলানিউজ
এম ইউ/০৫ অক্টোবর ২০২১

Back to top button