গবেষণা

ফাইজারের টিকার কার্যকারিতা ৬ মাস পর কমে যায়, বলছে গবেষণা

 

ফাইজার বায়োএনটেক টিকার দুই ডোজ নেয়ার ৬ মাস পর এর কার্যকারিতা ৪৭ শতাংশ থেকে ৮৮ শতাংশ পর্যন্ত কমে যায় বলে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে বার্তসংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়, সোমবার প্রকাশিত নতুন এক গবেষণা প্রতিবেদনে এমন চিত্র উঠে এসেছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য সংস্থা ফাইজারের বুস্টার ডোজ প্রয়োগের সিদ্ধান্ত গ্রহণের মধ্যে এ তথ্য উঠে আসলো।

বয়স্ক ও বেশি ঝুঁকিতে থাকাদের জন্য বুস্টার ডোজের প্রয়োজনীয়তা আছে কিনা, সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ার সময় যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য বিষয়ক সংস্থাগুলোও এই তথ্য-উপাত্ত বিবেচনায় নিয়েছিল।

ল্যানসেট মেডিকেল জার্নালে সোমবার প্রকাশিত হওয়া এসব তথ্য-উপাত্ত অগাস্টে স্বাধীনভাবে পর্যালোচনা বা পিয়ার রিভিউয়ের আগে প্রকাশ করা হয়েছিল।

তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, অন্তত ছয় মাস এই টিকা করোনা আক্রান্তকে হাসপাতালে নেওয়া ও মৃত্যু ঠেকাতে ৯০ শতাংশ কার্যকর। এমনকি অতি সংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টেও এই কার্যকারিতা থাকে।

বিশ্লেষণে বলা হয়, দুই ডোজ দেওয়ার পর প্রথম মাস ফাইজারের এই টিকা ৮৮ শতাংশ কার্যকর থাকে, কিন্তু ছয় মাস পর এই কার্যকারিতা ৪৭ শতাংশ কমে যায়। এই টিকা ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে খুবই কার্যকর এবং প্রথম মাসে এটি ৯০ শতাংশ কার্যকর। তবে চতুর্থ মাসে এর কার্যকারিতা ৫৩ শতাংশ কমে যায়।

এ গবেষণায় ফাইজার এবং কায়জার পারমানেন্টি গবেষকরা ৩০ লাখ ৪০ হাজার মানুষের ই নথি বিশ্লেষণ করেন। নথি বিশ্লেষণে টিকার প্রয়োগের আগে এবং টিকা প্রয়োগের পরের চিত্র তুলে ধরা হয়। অর্থাৎ ২০২০ এবং ২০২১ সালের তথ্যের মধ্যে তুলনামূলক বিশ্লেষণ করা হয়েছে।

এম ইউ/০৫ অক্টোবর ২০২১

Back to top button