দক্ষিণ এশিয়া

দেউলিয়া ঘোষণা করা অনিল আম্বানির বিদেশে গোপন ১৮ কোম্পানি

নয়াদিল্লি, ০৪ অক্টোবর – নিজেকে ‘দেউলিয়া’ ঘোষণা করা ভারতের শীর্ষ ধনী মুকেশ আম্বানির ভাই রিলায়েন্স এডিএ গ্রুপের চেয়ারম্যান অনিল আম্বানি ও তাঁর প্রতিনিধিরা জার্সি, ব্রিটিশ ভার্জিন দ্বীপপুঞ্জ (বিভিআই) ও সাইপ্রাসে কমপক্ষে ১৮টি অফশোর কোম্পানির মালিক। ২০০৭ থেকে ২০১০ সালের মধ্যে এগুলো প্রতিষ্ঠিত হয়েছে এবং এর মধ্যে কমপক্ষে ৭টি কোম্পানির ১৩০ কোটি ডলারের বিনিয়োগ ও ঋণ রয়েছে।

রোববার ফাঁস হওয়া ‘প্যান্ডোরা পেপার্সে’ এসব তথ্য জানা গেছে। মূলত ইন্টারন্যাশনাল কনসোর্টিয়াম অব ইনভেস্টিগেটিভ জার্নালিস্টস (আইসিআইজে) প্রতিবেদনের নাম দিয়েছে ‘প্যানডোরা পেপারস’। প্রকাশিত গোপন নথিগুলো বিবিসি, গার্ডিয়ানসহ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের যৌথ অনুসন্ধানে বের হয়ে এসেছে।

প্যান্ডোরা পেপার্সের নথি থেকে আরও জানা যায়, জার্সিতে অনিল আম্বানির মালিকানাধীন তিনটি কোম্পানি রয়েছে। এগুলো হলো ব্যাটিস্টে আনলিমিটেড, রেডিয়াম আনলিমিটেড ও হুই ইনভেস্টমেন্ট আনলিমিটেড। ২০০৮ সালের জানুয়ারিতে প্রতিষ্ঠিত জার্সিতে সামারহিল লিমিটেড ও ডুলউইচ লিমিটেড নামে আরও দুটি কোম্পানির মালিক অনিল আম্বানির প্রতিনিধি অনুপ দালাল।

এছাড়াও হুই ইনভেস্টমেন্ট আনলিমিটেড এএএ এন্টারপ্রাইজ লিমিটেডের মালিকানাধীন, যা রিলায়েন্স ক্যাপিটালের একটি প্রোমোটার কোম্পানি।

অনিল আম্বানির আইনজীবী জানিয়েছেন, ভারতের একজন করদাতা অনিল আম্বানি। ভারতীয় আইন মেনেই বৈধ ব্যবসায়িক কার্যক্রম পরিচালনা করেন তিনি।

বিশ্বজুড়ে ৩৫ রাষ্ট্রনেতা, ৩০০ সরকারি কর্মকর্তা, সেনা কর্মকর্তা, শ খানেক বিলিয়নেয়ারের গোপন সম্পদ ও লেনদেন ফাঁস করে দিয়ে আলোচনায় ‘প্যান্ডোরা পেপার্স’। মোনাকোয় ভ্লাদিমির পুতিনের গোপন সম্পদ, গোপনে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যে জর্ডানের রাজার ৭ কোটি পাউন্ড সম্পদ, কর ফাঁকি দিয়ে টনি ব্লেয়ারের অফিস ভবন কেনা, আজারবাইজানের ইলহাম আলিয়েভ পরিবারসহ অনেক প্রভাবশালী রাষ্ট্রনেতার দুর্নীতি প্রকাশ পায়।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
এম ইউ/০৪ অক্টোবর ২০২১

Back to top button