ফুটবল

ফাইনালে আর্জেন্টিনাকে হারাতে ‘জীবন দিয়ে দেবে’ পর্তুগাল

আজ রাতে পর্দা নামছে ফিফা ফুটসাল বিশ্বকাপের। লিথুয়ানির জালগিরিস এরেনায় শিরোপা নির্ধারণী ফাইনাল ম্যাচে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনার মুখোমুখি হবে পর্তুগাল। বিশ্বকাপের ২০১৬ সালের আসরে শিরোপা জিতেছিলো আর্জেন্টিনা। অন্যদিকে প্রথম শিরোপার সামনে দাঁড়িয়ে পর্তুগিজরা।

আর্জেন্টিনা দলের শক্তিমত্তার ওপর পূর্ণ শ্রদ্ধা রেখেই পর্তুগালের খেলোয়াড় হোয়াও ম্যাতোস জানিয়েছেন, ফাইনাল জিতে শিরোপা নিজেদের করতে জীবন দিয়ে দেবেন তারা। ফাইনালের আগে ফিফা ডট কমে দেয়া সাক্ষাৎকারে নিজেদের সম্ভাবনা ও প্রতিপক্ষ হিসেবে আর্জেন্টিনার ব্যাপারে কথা বলেছেন ম্যাতোস।

এ ডিফেন্ডার বলেছেন, ‘এ পর্যন্ত আসতে আমরা কঠোর পরিশ্রম করেছি। আমাদের কাজের সবচেয়ে মধুর ফল ছিলো ইউরো জেতা। এখন আমরা বিশ্বকাপের ফাইনালে আছি। বিশ্বকাপে খেলার মান আরও অনেক বেশি। আপনারাই দেখতে পারেন, দলগুলো কতটা ভারসাম্যপূর্ণ। কম শক্তিশালী দলের শক্তিও অনেক বেশি।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘প্রতিটি ম্যাচ অনেক বেশি কঠিন। আমরা তিনটি ম্যাচ অতিরিক্ত সময়ে গিয়ে জিতেছি। আমরা হৃদয় দিয়ে খেলে ব্যক্তিগত নৈপুণ্য ও দলীয় পরিকল্পনার মাধ্যমে ম্যাচগুলো জিতেছি। আমাদের সামনে এখন ইতিহাস গড়ার হাতছানি। পর্তুগালকে চ্যাম্পিয়ন করার জন্য আমরা জীবন দিয়ে দিতে প্রস্তুত আছি।’

ইউরোর বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের এবার চোখ বিশ্বকাপে, ‘আমি এই শিরোপার বিষয়ে অনেক স্বপ্ন দেখেছি। বিশ্বকাপ ছাড়া সকল বড় শিরোপা জিতেছি আমি। এই অবস্থায় থাকা পর্তুগালের একমাত্র খেলোয়াড় নই আমি। বিশ্বকাপ জেতার যেকোনো খেলোয়াড়ের ক্যারিয়ারে চূড়ান্ত অর্জন। এটা আমার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে সেরা মুহূর্ত হবে। আমি নিশ্চিত বাকিরাও একই কথা বলবে।’

এসময় আর্জেন্টিনা দলের প্রশংসায় তিনি বলেন, ‘আর্জেন্টিনা অনেক বেশি প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ দল। প্রতিযোগিতার কথা বললে তারা বিশ্বের অন্য যেকোনো দলের চেয়ে ভিন্ন পর্যায়ে আছে। আর্জেন্টিনাকে হারানো সত্যিই অনেক কঠিন। তাদেরকে খারাপ খেলতে দেখা দুষ্কর একটি বিষয়। যে কারণে সাম্প্রতিক সময়ে তারা এতো সাফল্য পেয়েছে, এ কারণেই তারা বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন।’

তাই বলে আর্জেন্টিনাকে ফেবারিট মানতে নারাজ পর্তুগিজ তারকা, ‘অন্য যেকোনো দলের চেয়ে কম ভুল করে তারা। তাদের সবচেয়ে বড় শক্তি হলো ঐক্যবদ্ধ খেলা। তবে আমরাও ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়ন। খেলাটা হবে পাঁচজন বনাম পাঁচজন। সত্যি বলতে আমি মনে করি না কেউ ফেবারিট আছে। এটা যে কারও পক্ষে যেতে পারে।’

সূত্র : জাগো নিউজ
এন এইচ, ০৩ অক্টোবর

Back to top button