ফুটবল

নতুন ক্লাব, নতুন সতীর্থদের সঙ্গে মানিয়ে নিচ্ছি : মেসি

বার্সেলোনা কিংবা আর্জেন্টিনার লিওনেল মেসিকে পিএসজিতে ঠিকভাবে দেখা যাচ্ছে না। চারদিকে যখন এমন আলোচনা-সমালোচনা চলছিল ঠিক তখনই গোল করে সবাইকে চুপ করিয়ে দিলেন তিনি। ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে গোল করলেন তিনি। ম্যাচের পুরোটা সময় নজরও কেড়েছেন এই আর্জেন্টাইন সুপারস্টার। তবে বার্সেলোনা ছেড়ে নতুন পরিবেশে এসে নতুন ক্লাবে নতুন সতীর্থদের সঙ্গে মানিয়ে নিচ্ছেন তিনি।

মঙ্গলবার রাতে ঘরের মাঠে ম্যান সিটির বিপক্ষে ২-০ গোলের ব্যবধানে জিতেছে পিএসজি। ম্যাচের ৭৪ মিনিটে কিলিয়ান এমবাপের সঙ্গে দারুণ বোঝাপড়ায় দুর্দান্ত এক গোল করেন মেসি। তাতেই উল্লাসে ফেটে পড়ে প্যারিসের পার্ক দেস প্রিন্সে স্টেডিয়ামে গ্যালারি। প্রথম গোলের আনন্দে মেসিও হয়েছে আত্মহারা। ম্যাচ শেষে জানিয়েছেন, ‘আমি খুবই খুশি যে গোল করতে পেরেছি।’

দীর্ঘ ২১ বছরের সম্পর্ক ছিন্ন করে বার্সেলোনা ছেড়ে এসেছেন মেসি। নতুন পরিবেশে নিজের চেনারূপে ফিরতে তাই কিছুটা সময় বেশি লেগে যাচ্ছে তার। এ বিষয়ে মেসি বলেন, ‘আমি পিএসজিতে আসার পর খুব বেশি ম্যাচ খেলিনি। পার্ক দেস প্রিন্সেসে এটা আমার দ্বিতীয় ম্যাচ। আমি ধীরে ধীরে আমার নতুন পরিবেশ, নতুন ক্লাব আর নতুন সতীর্থদের সঙ্গে নিজেকে মানিয়ে নিচ্ছি।’

ক্লাব সতীর্থ ও বন্ধু নেইমার এবং তরুণ তারকা ফরোয়ার্ড এমবাপের সঙ্গে নিজের সমন্বয়টা ভালো করে গড়ে তোলাই লক্ষ্য মেসির। তিনি বলেন, ‘আমরা যত বেশি একসঙ্গে খেলব, তত বেশি দলের কাজে আসতে পারব। সবাইকে একসঙ্গে উন্নতি করতে হবে। মান বাড়াতে হবে একই সঙ্গে। আমরা আজ ভালো খেলেছি। সামনের ম্যাচগুলোতেও আমাদের নিজেদের সেরাটা দিয়ে যেতে হবে।’

এদিকে মেসির প্রথম গোলের পর তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ম্যান সিটির কোচ ও তার সাবেক গুরু পেপ গার্দিওলা। ২০০৮ থেকে ২০১২ পর্যন্ত বার্সেলোনায় গার্দিওলার অধীনে খেলেছেন মেসি। গার্দিওলা বলেন, ‘মেসির প্রতি আমার সব সময়ই শুভকামনা আছে। আমি চাই মেসি পিএসজিতে আনন্দে থাকুক এবং এখানকার প্রতিটি মুহূর্ত উপভোগ করুক। আজ মেসির সঙ্গে দেখা হয়ে খুব ভালো লাগল।’

সূত্র : আমাদের সময়
এম এস, ২৯ সেপ্টেম্বর

Back to top button