জাতীয়

জনবিচ্ছিন্ন বিএনপি কখনই ক্ষমতায় আসতে পারবে না: হানিফ

ঢাকা, ২৯ সেপ্টেম্বর – অপকর্মের কারণে জনবিচ্ছিন্ন বিএনপি আর ক্ষমতায় আসতে পারবে না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ।

বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে রমনার সুইড ইস্কাটন গার্ডেন অডিটরিয়ামে আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ উপকমিটি বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ ও বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন।

হানিফ বলেন, দেশের একটি দল ক্ষমতায় থাকাকালে সীমাহীন লুটপাট করে দেশ পরিচালনা করেছে। তারা এখন জননেত্রী শেখ হাসিনার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পছন্দ করে না। এই দেশের মানুষ আর কখনও বিএনপি জামায়াতের দুঃশাসনে ফিরে যেতে চায় না। এ দেশের মানুষ আর হাওয়া ভবন চায় না।

‘এদেশের মানুষ বিএনপি জামায়াতের দুঃশাসনের সময় নির্বিচারে হত্য, লুটপাট সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড দেখতে চায় না। আজকে বিএনপি জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। ক্ষমতায় থাকতেও তারা অপকর্ম করেছে ক্ষমতার বাইরে থেকেও তারা ২০১৩,১৪,১৫ সালে যেভাবে মানুষকে পেট্রোল বোমা মেরে পুড়িয়ে হত্যা করেছে এটা কোন মানুষের কাজ হতে পারে না।’

জনবিচ্ছিন্ন বিএনপি আর ক্ষমতায় আসতে পারবে না দাবি করে আওয়ামী লীগের এই যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, যারা এই সব হত্যাকাণ্ডগুলো করেছে তারা মানুষ রুপে পিশাচ। এই বিএনপি নেতাকর্মীরা যে পৈশাচিক কাজগুলো করেছে, যার কারণে তারা জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

‘বিএনপি এদেশের নিরীহ মানুষকে পুড়িয়ে হত্যা করেছে, এর জন্য তাদের যুগ যুগ ধরে প্রায়শ্চিত্ব করতে হবে। তাদের যুগ যুগ ধরে জনগণ থেকে দূরে থাকতে হবে। জনগণ তাদের প্রত্যাখ্যান করেছে। তাদের এ ধরনের কৃতকর্মের কারণে আর ক্ষমতায় আসতে পারবে না। সরকারের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করে দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত করে আমাদের উন্নয়ন অগ্রযাত্রাকে ব্যাহত করতে পারবে না।’

হানিফ বলেন, আমাদের আগে যে সরকার দেশ পরিচালনা করেছে, তাদের আমরা কখনো দেখিনি। বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের নিয়ে কোনো কাজ করতে। প্রধানমন্ত্রী এই শিশুদের প্রতি গুরুত্ব দিয়ে, বাচ্চারা যাতে স্বাভাবিক জীবন ও মেধার বিকাশ ঘটাতে পারে এবং সামাজিক সব সুযোগ সুবিধা ভোগ করতে পারে সেজন্য অনেকগুলো পদক্ষেপ নিয়েছেন।

‘জাতীয় প্রতিবন্ধী ফাউন্ডেশন করেছেন, সাভারে ১২ একর জমির ওপর আন্তর্জাতিক মানের ক্রীড়া কমপ্লেক্স তৈরি করা হচ্ছে। মানিক মিয়া অ্যাভিনিউয়ে দক্ষিণ পাশে চার একর জায়গার মাঠ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। ২০১২ সালে মানসিক স্বাস্থ্য আইন তৈরি করা হয়েছে, ২০১৩ সালে প্রতিবন্ধী সুরক্ষা আইন করা হয়েছে। ২০১৩ সালে ডিজএবিলিটি প্রটেকশন ট্রাস্ট গঠন করা হয়েছে। ২০১৪ সালে তাদের নিয়ে কাউন্সিল আইন করা হয়েছে। এসবগুলো করেছেন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ উপকমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক খন্দকার বজলুল হকের সভাপতিত্বে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য মারুফা আক্তার পপি, পারভীন জামান কল্পনা বক্তব্য রাখেন।

সূত্র : রাইজিংবিডি
এন এইচ, ২৯ সেপ্টেম্বর

Back to top button