জাতীয়

৭৫ লাখ টিকাদানের কত শতাংশ টার্গেট পূরণ

ঢাকা, ২৯ সেপ্টেম্বর – প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) রাজধানীসহ সারাদেশে ৭৫ লাখ ডোজ টিকাদানের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে বিশেষ ক্যাম্পেইন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। সকাল ৯টা থেকে উৎসবমুখর পরিবেশে নিরবিচ্ছিন্নভাবে টিকা দেওয়া হয়েছে। তবে বিশেষ এই ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে ৭৫ লাখ টিকাদানের টার্গেট পূরণ হয়েছে কিনা তা জানায়নি স্বাস্থ্য বিভাগ।

শুক্রবার ছুটির দিন ব্যতীত অন্যান্য দিন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল শাখা থেকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক এম আই এস ও লাইন ডিরেক্টর এইচআইএস অ্যান্ড ই-হেলথ শাখার পরিচালক অধ্যাপক চিকিৎসক মিজানুর রহমান স্বাক্ষরিত কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন সংক্রান্ত দৈনিক তথ্য দেওয়া হলেও আজ মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বিশেষ টিকাদান কিংবা দৈনিক টিকাদান সংক্রান্ত কোনো তথ্য দেওয়া হয়নি।

ফলে দেশব্যাপী পরিচালিত বিশেষ টিকা কার্যক্রমে ৭৫ লাখ টার্গেট জনগোষ্ঠীর মোট কত শতাংশকে এদিন টিকাদান হয়েছে তা জানা সম্ভব হয়নি। সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) পর্যন্ত সারাদেশে টিকা গ্রহণকারীর সংখ্যা ছিল ৪ কোটি ১৩ লাখ ৮০ হাজার ৭০৬ জন। টিকা গ্রহণের জন্য নিবন্ধনকারী সংখ্যা ছিল ৪ কোটি ৪৮ লাখ ১৯ হাজার ৫০৩ জন।

তবে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা মাঈদুল ইসলাম প্রধান স্বাক্ষরিত এক তথ্য বিবরণীতে বলা হয়, মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে দেশব্যাপী একযোগে ৭৫ লাখ মানুষকে কোভিড-১৯ টিকাদানের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে দিনব্যাপী টিকাদান কর্মসূচি পালিত হয়।

ইউনিয়ন, ওয়ার্ড থেকে শুরু করে সিটি কর্পোরেশন ও শহর এলাকাজুড়ে এই কর্মসূচি সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠিত হয়। কর্মসূচিতে সরকারি-বেসরকারি ও স্বেচ্ছাসেবীসহ প্রায় ৮০ হাজার মানুষ অংশগ্রহণ করেন।

এদিকে কর্মসূচির কাজের অগ্রগতি পর্যবেক্ষণ করতে দুপুর ১২টায়, ধানমন্ডি ৮/এ, ডিঙি রেস্টুরেন্ট সংলগ্ন টিকাদান কেন্দ্র পরিদর্শন করেন প্রধানমন্ত্রীর মূখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব লোকমান হোসেন মিয়া, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক প্রফেসর এবিএম খুরশিদ আলমসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা।

পরিদর্শনকালে মুখ্যসচিব বলেন, সারাদেশে একযোগে টিকাদান কর্মসূচি সুষ্ঠুভাবে পালিত হচ্ছে। দেশের মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে টিকাদান কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছে। এই কর্মসূচি আমাদের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ না হওয়া পর্যন্ত চলমান থাকবে।

সারাদেশের সঙ্গে রাজধানীর ঢাকা মেডিকেল কলেজ, স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল, শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতাল ও কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালেও এই কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

এর আগে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিনকে স্মরণীয় করে রাখতে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যুক্ত সব সংগঠনকে আনুমানিক ৭৫ লাখ ব্যক্তির জন্য লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে এই টিকাদান কর্মসূচি বাস্তবায়নে তৎপর থেকে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনের মর্যাদা অক্ষুণ্ণ রাখার নির্দেশনা দেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী আজ বিশেষ ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে সারাদেশে ৭৫ লাখ ডোজ কোভিড-১৯ ভ্যাক্সিন কর্মসূচি সুষ্ঠুভাবে পালিত হয়।

সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) এ কর্মসূচি উপলক্ষে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে জানানো হয়;

১) এদিন সারাদেশের সব সিটি কর্পরেশন, পৌরসভা, উপজেলা ও ইউনিয়নে দিনব্যাপী এই ক্যাম্পেইন পরিচালিত হবে যা শুরু হবে সকাল ৯টা থেকে।
২) এই ক্যাম্পেইনে শুধুমাত্র ১ম ডোজ ভ্যাকসিন দেওয়া হবে।
৩) পরবর্তী মাসে একইভাবে ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে ২য় ডোজ দেওয়া হবে।
৪) ক্যাম্পেইনের আগে রেজিস্ট্রেশন করা ২৫ বছর বয়সোর্ধ নাগরিকদের এসএমএস দেওয়ার মাধ্যমে অবহিত করে কেন্দ্রে ডাকা হবে
৫) ক্যাম্পেইন শুরুর প্রথম ২ ঘণ্টা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পঞ্চাষোর্ধ বয়স্ক নাগরিক, নারী ও শারীরিক প্রতিবন্ধীদের ভ্যাকসিন দেওয়া হবে।
৬) ভ্যাকসিন নেওয়ার জন্য এনআইডি কার্ড ও টিকা কার্ড সঙ্গে আনতে হবে।
৭) ক্যাম্পেইনে গর্ভবতী ও দুগ্ধদানকারী নারীদের টিকা দেওয়া হবে না।

বিকেল ৫টা পর্যন্ত শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত জানা গেছে, যেসব কেন্দ্রে লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হয়নি সেসব কেন্দ্রে টিকাদান চলমান ছিল বলে তথ্যবিবরণীতে উল্লেখ করা হয়।

সূত্র : জাগো নিউজ
এন এইচ, ২৯ সেপ্টেম্বর

Back to top button