শিক্ষা

দীর্ঘ বন্ধের পর ঢাবি গ্রন্থাগারে শিক্ষার্থীরা

ঢাকা, ২৬ সেপ্টেম্বর – দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর রোববার সকালে খুলে দেয়া হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গ্রন্থাগার। তবে এখনই গ্রন্থাগার থেকে কোনো বই বাইরে নিতে দেয়া হচ্ছে না। ভেতরে ঢুকতে হলে শিক্ষার্থীদের করোনার অন্তত এক ডোজ টিকা নেয়ার প্রমাণপত্রসহ পরিচয়পত্র দেখাতে হচ্ছে।

১৮ সেপ্টেম্বর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সভায় সিদ্ধান্ত হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রন্থাগার ও সেমিনারের গ্রন্থাগারগুলো সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। তবে গ্রন্থাগারগুলোতে প্রবেশ করতে হলে অন্তত এক ডোজ টিকা নেয়ার প্রমাণপত্র ও বিশ্ববিদ্যালয়ের বৈধ পরিচয়পত্র দেখাতে হবে। প্রাথমিকভাবে শুধু স্নাতক চতুর্থ বর্ষ ও স্নাতকোত্তরের শিক্ষার্থীরাই গ্রন্থাগারগুলো ব্যবহার করবে।

সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আজ সকাল থেকে খোলা হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল গ্রন্থাগার ও বিভিন্ন বিভাগের ও ইনস্টিটিউটের সেমিনারের গ্রন্থাগারগুলো। শিক্ষার্থীদের শারীরিক দূরত্ব মেনে প্রবেশ করতে হচ্ছে। এ জন্য গ্রন্থাগারের মূল ফটকে প্রতি তিন ফুট পর বৃত্তাকার চিহ্ন দেওয়া হয়েছে। প্রথমে টিকার প্রমাণপত্র ও পরিচয়পত্র দেখিয়ে ঢুকতে হচ্ছে শিক্ষার্থীদের। এরপর ভেতরে শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা করা হচ্ছে। ফটকের ভেতরে শিক্ষার্থীদের জন্য মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও হাত ধোয়ার ব্যবস্থা আছে।

গ্রন্থাগারের ফটকে স্বাস্থ্যবিধি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে কঠোর নজরদারি করছেন গ্রন্থাগারের কর্মকর্তারা। সকালে কিছু শিক্ষার্থী লাইন ধরে গ্রন্থাগারে প্রবেশ করেন। কিছুক্ষণ পরপর শিক্ষার্থীরা আসছেন। বাইরে থেকে কোনো বইপত্র নিয়ে কাউকে গ্রন্থাগারে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। স্নাতক চতুর্থ বর্ষ ও স্নাতকোত্তর শ্রেণির বাইরে অন্য শিক্ষার্থীদের ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। এছাড়া যাচাই করা হচ্ছে টিকার প্রমাণপত্র ও পরিচয়পত্রের বিষয়টিও।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এন এইচ, ২৬ সেপ্টেম্বর

Back to top button